eibela24.com
বুধবার, ০৮, ডিসেম্বর, ২০২১
 

 
মহম্মদপুরে নিতাই ছাড়াই চলবে বিএনপি দল
আপডেট: ১১:০৮ pm ০৮-১১-২০২০
 
 


বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান নিতাই রায় চৌধুরীকে অবাঞ্ছিত ঘোষণা করেছে মহম্মদপুর উপজেলা বিএনপি ও অঙ্গ সংগঠনের নেতাকর্মীরা।

ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনকে সামনে রেখে মহম্মদপুরের মধুমতি ফুড কর্নারে ৩০শে অক্টোবর শুক্রবার অনুষ্ঠিত এক বর্ধিত আলোচনা সভায় তাকে অবাঞ্ছিত ঘোষণা করেন দলীয় নেতাকর্মীরা।

উপজেলা বিএনপির সভাপতি গোলাম আজম সাবুর সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন, সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান ও উপজেলা বিএনপির সাবেক সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম খাঁন বাচ্চু, সাধারণ সম্পাদক সাবেক চেয়ারম্যান আক্তারুজ্জামান, যুগ্ম সম্পাদক রেজাউল করিম, সাংগঠনিক সম্পাদক গোলাম রব্বানী হিরো, জেলা যুবদলের সহ-সভাপতি শরিফুজ্জামান টুকু, যুবদলের সাবেক সাধারন সম্পাদক মো: মিজানুর রহমান প্রমুখ। এছাড়া উপজেলার আট ইউনিয়ন বিএনপির সভাপতি-সাধারণ সম্পাদকসহ নেতাকর্মীরা তাদের মতামত ব্যক্ত করেন।

আলোচনা সভায় বক্তারা বলেন, নিতাই রায় চৌধুরী ২০১৮ সালের নির্বাচনে দলীয় মনোনয়ন পেলে উপজেলা বিএনপির সভাপতি গোলাম আজম সাবুর ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ইটভাটায় দলীয় নেতাকর্মীদের নিয়ে এক আলোচনা সভায় ভেদাভেদ ভুলে দলের ভেতরে কোন লবিং গ্রুপিং করবেন না বলে তিনি ওয়াদাবদ্ধ হন। নির্বাচন করতে গিয়ে সভাপতি-সাধারণ সম্পাদকসহ দলীয় অনেক নেতাকর্মী একাধিক মামলারও শিকার হন। পরে নির্বাচন পেরিয়ে গেলে তিনি তার ওয়াদার কথা ভুলে গিয়ে আগের রূপে ফিরে যান। আগের মতোই তিনি তার মনগড়া ব্যক্তিগত অরাজনৈতিক লোকজনদের দিয়ে যুবদল, স্বেচ্ছা সেবকদল ও কৃষকদলসহ অন্যান্য অংগসংগঠনের কমিটি করার চেষ্টা করছেন।

এতে করে মহম্মদপুর উপজেলা বিএনপির দলীয় কোন্দল এখন চরমে পৌঁছেছে। এসব কারণেই তাকে বর্ধিত সভায় তাকে অবাঞ্ছিত ঘোষণা করার অনুরোধ জানান। মহম্মদপুর উপজেলা বিএনপির সভাপতি গোলাম আজম সাবু তার বক্তব্যে বলেন, কেন্দ্রীয় বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান নিতাই রায় চৌধুরী বিএনপিতে যোগদানের পর থেকেই দলের ভেতরে অভ্যন্তরীণ কোন্দল বাড়িয়েই চলছে। এরকম অগণতান্ত্রিক কমিটির কারণে তৃণমূল পর্যায়ের নেতাকর্মীরা চরম ক্ষতির সম্মুখিন হচ্ছে এবং মূলধারার রাজনীতি থেকে ছিটকে পড়ছে নেতাকর্মীরা। তার এসকল মনগড়া কার্যক্রমের প্রতিবাদে নেতাকর্মীদের মতামতের ভিক্তিতে তাকে মহম্মদপুরের মাটি থেকে তাকে অবাঞ্ছিত ঘোষণা করেন। এমন মনগড়া অগনতান্ত্রিক, অসাংগঠনিক কমিটি যেন আর করতে না পারে সেজন্য কেন্দ্রীয় নেতাকর্মীদেরসহ বিএনপির চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া ও ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের হস্তক্ষেপ কামনা করেন তিনি।.

নি এম/দ্বীনবন্ধু