eibela24.com
শনিবার, ২৪, জুলাই, ২০২১
 

 
রাম আমাদের সংস্কৃতির ভিত্তি, ভারতের মর্যাদা পুরুষোত্তম: মোদি
আপডেট: ০৯:০৫ pm ০৫-০৮-২০২০
 
 


ভারতের উত্তরপ্রদেশের অযোধ্যায় রাম মন্দিরের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেছেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করে তিনি বলেন, বহু দিনের প্রতীক্ষার অবসান হলো। পূজার শুরুতে ৪০ কেজি রুপার ইট পুঁতে রামমন্দির নির্মাণের সূচনা করেছেন তিনি। মোট নয়টি শিলগ্রাম শিলার পূজা চলবে অযোধ্যার মন্দির নির্মাণ স্থলে। ১৯৯০ সালে রামমন্দির আন্দোলনের অন্যতম উদ্যোক্তা ছিলেন নরেন্দ্র মোদি। তিন দশক পর মন্দির নির্মাণের প্রথম ইট পুঁতলেন। অংশ নিলেন ভূমি পূজায়।

ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি বলেছেন, ‘গোটা দেশ এখন রামময়। রামজন্মভূমি আজ মুক্ত। সরযূ নদীর তীরে সূচনা হল স্বর্ণযুগের।’ বুধবার (৫ অগাষ্ট) উত্তর প্রদেশের অযোধ্যায় বহুলালোচিত রাম মন্দিরের ভূমি পুজো ও ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপনের পরে এক বক্তব্যে ওই মন্তব্য করেন মোদি।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘রামমন্দিরের জন্য অনেকেই জীবন বিসর্জন দিয়েছেন। সেজন্য আজকের দিন হল ত্যাগ ও তপস্যার দিন। আর এই মন্দির হল ত্যাগ ও তপস্যার প্রতীক। এটি আমাদের সংস্কৃতির প্রতীক। আমাদের রাষ্ট্রীয় ভাবনার প্রতীক।’

তার দাবি, ‘এই মন্দির তৈরির পরে গোটা বিশ্ব থেকে দর্শনার্থীরা এখানে আসবেন। আমাদের অর্থনৈতিক অবস্থারও পরিবর্তন হবে।’

তিনি বলেন, ‘শ্রীরাম ভারতের মর্যাদা পুরুষোত্তম। রাম আমাদের সংস্কৃতির ভিত্তি। এরই আলোকে অযোধ্যায় রাম জন্মভূমিতে শ্রীরামের বিশাল মন্দিরের জন্য আজ ভূমি পুজা হয়েছে।’

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আমাদের মনে রাখতে হবে, মানবজীবনে আমরা যখন রামকে মেনে চলেছি, তার আদর্শের পথে আমরা থেকেছি তখনই বিকাশ হয়েছে। সেই পথ থেকে বিভ্রান্ত হলেই বিনাশ হয়েছে। আমাদের সবার অনুভূতিকে গুরুত্ব দিতে হবে, সবার সঙ্গে থেকে সবার উন্নতি করতে হবে। সবার আস্থা অর্জন করতে হবে।’

তিনি বলেন, ‘অনেক বছর ধরে কাঠ আর তাঁবুর নীচেয় থাকা রামলালার জন্য এবার মন্দির নির্মাণ। ভাঙা গড়ার মধ্যদিয়ে উঠে আসা এই মন্দির ইতিহাসে অনন্য হয়ে থাকবে। ভগবানের রামের অদ্ভুত শক্তি দেখুন। ইমারত ধ্বংস হয়ে গেছে। অস্তিত্ব মিটিয়ে দেওয়ার চেষ্টা হয়েছে। কিন্তু রাম এখনও আমাদের মনে রয়েছে। আমাদের সংস্কৃতির আধার তিনি। ভারতের মর্যাদা পুরুষোত্তম হলেন ভগবান রাম।’

আজকের ওই অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ছাড়াও উত্তর প্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ, আরএসএস প্রধান মোহন ভাগবত, উত্তরপ্রদেশের গভর্নর আনন্দীবেন প্যাটেল প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

এই মন্দির নিয়ে আন্দোলনে ভর করে ভারতের জাতীয় রাজনীতিতে প্রাধান্য বাড়ে বিজেপির। গত বছর নভেম্বরে ২.৭৭ একরের জমির মালিকানা দেওয়া হয় রামমন্দির ট্রাস্টকে। সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশে এই মামলার নিষ্পত্তি হয়।

নি এম/