eibela24.com
বৃহস্পতিবার, ২১, জানুয়ারি, ২০২১
 

 
পিরোজপুরে সংখ্যালঘু ভাইস চেয়ারম্যানের উপর হামলা
আপডেট: ১১:৩৩ pm ০৯-০৭-২০২০
 
 


পিরোজপুর জেলার মঠবাড়িয়া উপজেলা পরিষদের সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান ধর্মীয় সংখ্যালঘু শ্রীমতি রমা রানী মজুমদার শোভাকে (৫৫) মাথা ও শরীরের বিভিন্ন অংশে কুপিয়ে জখম করেছে প্রতিবেশী মোঃ ইসমাইল হাওলাদার নামের এক মাদক ব্যবসায়ী। রমা রানী এখনো উপজেলা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রয়েছেন। 

বৃহস্পতিবার (২ জুলাই) রাত নয়টার দিকে পিরোজপুর জেলার মঠবাড়িয়া শহরের দক্ষিণ বন্দর-সুইজগেট এলাকার নিজ বাস ভবনে তিনি এ হামলার শিকার হন। তার মাথায় ৬টি স্থানে ধারালো অস্ত্রের কোপে ক্ষত হয়েছে বলে চিকিৎসকরা জানিয়েছেন।

হামলাকারী মোঃ ইসমাইল একই এলাকার রত্তন হাওলাদার এর ছেলে। 

সম্প্রতি একটি মাদক মামলায় জামিনে বেরিয়ে এসে সাবেক নারী ভাইস চেয়ারম্যানের ওপর এ সন্ত্রাসী হামলার ঘটনা ঘটায়। বর্তমানে একই মাদক মামলায় তার মা ও বোন জেল হাজতে রয়েছে।

হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে, মঠবাড়িয়া শহরের দক্ষিণবন্দর সুইজগেট মহল্লার বাসিন্দা সাবেক উপজেলা পরিষদের সাবেক নারী ভাইস চেয়ারম্যান রমা রানী মজুমদার শোভার সাথে প্রতিবেশী রতন হাওলাদার এর ছেলে ইসমাইল হাওলাদার এর জমির সীমানা নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলে আসছিলো। প্রতিপক্ষ মোঃ ইসমাইল মাদক কেনা বেচা ও সেবনে জড়িত হওয়ার পর পুলিশ তাকে ও পরিবারের সদস্যদের কয়েকদফা গ্রেফতার করে। সম্প্রতি মাদক মামলায় কয়েকদিন আগে জেল থেকে জামিনে মুক্ত হয়ে বাড়িতে আসে। বৃহস্পতিবার রাত নয়টার দিকে রান্নাঘরে রমা রানী রান্না নিয়ে ব্যস্ত ছিলেন। এসময় বাসায় কেউ না থাকার সুযোগে ইসমাইল ধারালো অস্ত্র দিয়ে তাকে এলোপাথাড়ি কোপানো শুরু করে। পরে তার চিৎকারে প্রতিবেশীরা ছুটে এলে হামলাকারী ইসমাইল পালিয়ে যায়। সেখান থেকে আহত অবস্থায় প্রতিবেশীরা তাকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়।

মঠবাড়িয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের কর্তব্যরত সার্জন ডা. রাকিবুর রহমান বলেন, সাবেক নারী ভাইস চেয়ারম্যানের মাথার ৬টি স্থানে ধারালো অস্ত্রের আঘাত রয়েছে। তবে তিনি কিছুটা আশংকামুক্ত। তাকে যথাযথ চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। 

এ বিষয়ে মঠবাড়িয়া থানার অফিসার ইনচার্জ মো: মাসুদুজ্জামান মিলু ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। আহত শোভা রানী থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করার পর দুই আসামীর বিরুদ্ধে গত ০৫।০৭।২০ তারিখে দণ্ডবিধি আইনের ৪৪৭/৩২৪/৩২৬/৩০৭/৫০৬/৩৭৯/১১৪ ধারায় মামলা রুজু হয়েছে। কোন আসামী এখনও গ্রেফতার হয়নি। 

নি এম/