শুক্রবার, ০৫ মার্চ ২০২১
শুক্রবার, ২১শে ফাল্গুন ১৪২৭
সর্বশেষ
 
 
প্রথম নারী চিকিৎসক ডাঃ কাদম্বিনী গঙ্গোপাধ্যায় এর ১৫৯তম জন্মদিন আজ
প্রকাশ: ১১:৪১ pm ১৮-০৭-২০২০ হালনাগাদ: ১১:৪১ pm ১৮-০৭-২০২০
 
এইবেলা ডেস্ক
 
 
 
 


ব্রাহ্ম সমাজের সংস্কারক, ইউরোপীয় চিকিৎসা শাস্ত্রে শিক্ষিত দক্ষিণ এশিয়ার প্রথম নারী চিকিৎসক কাদম্বিনী গঙ্গোপাধ্যায়  ১৫৯তম জন্মদিন আজ। ১৮ জুলাই, ১৮৬১ বিহারের ভাগলপুরে জন্ম গ্রহন করেন তিনি। তার পিতা ব্রজকিশোর বসুর মূল বাড়ি ছিল বাংলাদেশের বরিশাল জেলার চাঁদশী’তে।

কাদম্বিনী তার লেখাপড়া শুরু করেন বঙ্গ মহিলা বিদ্যালয়ে। এরপর বেথুন স্কুলে পড়ার সময়ে তিনি ১৮৭৮ সালে প্রথম ভারতীয় নারী হিসাবে কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রবেশিকা পরীক্ষায় দ্বিতীয় শ্রেণিতে পাস করেন। তার দ্বারাই প্রভাবিত হয়ে বেথুন কলেজ প্রথম এফ.এ (ফার্স্ট আর্টস) এবং তারপর অন্যান্য স্নাতক শ্রেণি আরম্ভ করে। কাদম্বিনী এবং চন্দ্রমুখী বসু বেথুন কলেজের প্রথম গ্রাজুয়েট হয়েছিলেন ১৮৮৩ খ্রিষ্টাব্দে। তারা বি.এ পাস করেছিলেন। তারা ছিলেন ভারতে এবং সমগ্র ব্রিটিশ সাম্রাজ্যের প্রথম নারী গ্রাজুয়েট।

গ্রাজুয়েট হবার পর কাদম্বিনী দেবী সিদ্ধান্ত নেন যে তিনি ডাক্তারি পড়বেন। ১৮৮৩ সালে কোলকাতা মেডিকেল কলেজে ভর্তি হন। ১৮৮৬ খ্রিষ্টাব্দে তাকে জিবিএমসি (গ্রাজুয়েট অফ বেঙ্গল মেডিকেল কলেজ) ডিগ্রি দেওয়া হয়। তিনি ছিলেন প্রথম ভারতীয় নারী যিনি পাশ্চাত্য চিকিৎসারীতিতে চিকিৎসা করবার অনুমতি পান।

কাদম্বিনী দেবী ১৮৮৩ সালে ২১ বছর বয়সে বিয়ে করেন তার স্কুল শিক্ষক দ্বারকানাথ গাঙ্গুলীকে।।

বিখ্যাত আমেরিকান ইতিহাসবিদ ডেভিড কফ লিখেছেন, "কাদম্বিনী ছিলেন তাঁর সময়ের সবচেয়ে স্বাধীন ব্রাহ্ম নারী। তৎকালীন বাঙালি সমাজের অন্যান্য ব্রাহ্ম এবং খ্রিস্টান নারীদের চেয়েও তিনি অগ্রবর্তী ছিলেন।"

১৯২৩ সালের ৩ অক্টোবর  কাদম্বিনী মারা যান। কিন্তু মানবদরদী এই মহান নারীর মৃত্যু নাই। বাঙালি নারীদের জীবনে তিনি তিনি আলোকবর্তিকা হয়ে যুগ যুগ ধরে বেঁচে থাকবেন।

নি এম/

 
 
 
   
  Print  
 
 
 
 
 
 
 
 
আরও খবর

 
 
 

 

E-mail: info.eibela@gmail.com

a concern of Eibela Ltd.

Request Mobile Site

Copyright © 2021 Eibela.Com
Developed by: coder71