মঙ্গলবার, ২১ আগস্ট ২০১৮
মঙ্গলবার, ৬ই ভাদ্র ১৪২৫
 
 
সাংবাদিক শিমুল হত্যা
মামলা দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালে স্থানান্তরের দাবিতে মানববন্ধন
প্রকাশ: ০৪:৪৫ pm ০৭-০১-২০১৮ হালনাগাদ: ০৪:৪৫ pm ০৭-০১-২০১৮
 
সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধি:
 
 
 
 


সমকালের শাহজাদপুর প্রতিনিধি আব্দুল হাকিম শিমুল হত্যা মামলার বিচারিক কার্যক্রম জেলা ও দায়রা জজ আদালত থেকে শিগগিরই দ্রুত বিচার ট্রাইবুনালে স্থানান্তরের দাবিতে শাহজাদপুরে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ কর্মসূচি পালিত হয়েছে।

রবিবার সকালে শাহজাদপুর উপজেলায় কর্মরত গণমাধ্যমকর্মীদের আয়োজনে এই মানববন্ধন কর্মসূচিতে প্রয়াত সাংবাদিক শিমুলের স্বজন ও উপজেলা আওয়ামী লীগ, যুবলীগ ও ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরাসহ বিভিন্ন পেশাজীবীরা অংশ নেন। উপজেলা সদরের মনিরামপুর বাজারে ঘণ্টাব্যাপী মানববন্ধন চলাকালে সংক্ষিপ্ত একটি প্রতিবাদ সভারও আয়োজন করা হয়।

শাহজাদপুর প্রেসক্লাবের সভাপতি বিমল কুমার কুণ্ডুর সভাপতিত্বে প্রতিবাদ সভায় সমকালের জেলা প্রতিনিধি আমিনুল ইসলাম খান রানা, শাহজাদপুর প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক শফিকুজ্জামান শফি, রিপোর্টাস ক্লাবের সভাপতি আতাউর রহমান পিন্টু, সাংবাদিক হাসানুজ্জামান তুহিন, সাংবাদিক আবুল কাশেম, সাংবাদিক ফোরামের সাধারণ সম্পাদক ওমর ফারুক, সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি এ জাফর লিটন, সাংবাদিক আল-আমিন হোসেন, শাহজাদপুর পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আমিনুল ইসলাম সাবু, যুবলীগ নেতা আশিকুল হক দিনার, উপজেলা ছাত্রলীগ সভাপতি মাহবুব-এ-ওয়াহিদ ওরফে শেখ কাজল, সাধারণ সম্পাদক  ইসলাম শেখ, উপজেলা তাঁত শ্রমিকলীগের সাধারণ সম্পাদক আল মাহমুদ, সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের সাবেক সাধারণ সম্পাদক কাজী শওকত, বণিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক রবিন আকন্দ প্রমুখ বক্তব্য রাখেন। দৈনিক নিউ এজ পত্রিকার জেলা প্রতিনিধি সুলতানা ইয়াসমিন মিলি, একাত্তর টিভির জেলা প্রতিনিধি মাসুদ পারভেজ, বাংলা নিউজের জেলা প্রতিনিধি স্বপন চন্দ্র দাস, যমুনা টিভির স্টাফ রির্পোটার গোলাম মোস্তফা রুবেলসহ জেলার গণমাধ্যম কর্মীরাও উপস্থিত ছিলেন। 

মানববন্ধন শেষে বিক্ষোভ মিছিল নিয়ে শিমুলের সহকর্মী ও স্বজনরা ভারপ্রাপ্ত উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (এসিল্যান্ড) হাসিব সরকারের মাধ্যমে জেলা প্রশাসক বরাবর স্মারকলিপি জমা দেন। চাঞ্চল্যকর এ মামলা দ্রুত বিচার ট্রাইবুনালে স্থানান্তরের প্রক্রিয়ার অংশ হিসেবে আগামী ১৪ জানুয়ারি জেলা আইন শৃঙ্খলা সভায় এটি উত্থাপন এবং পরবর্তীতে আইন মন্ত্রণালয়ে অনুমোদনের জন্য জেলা কমিটিরি সুপারিশসহ প্রেরণের জন্যও স্মারকলিপিতে উল্লেখ করা হয়।

এদিকে, স্মারকলিপি দেওয়ার আগে 'মিরু-মিন্টু দু'ভাই এক দড়িতে ফাঁসি চাই', 'মিরু-মিন্টুর আস্তানা শাহজাদপুরে হবে না', 'শিমুলের হত্যাকারীদের রেহাই নেই, রেহাই দেয়া হবে না’, অবিলম্বে মামলাটি দ্রুত বিচার ট্রাইবুনালে নিতে হবে, নিতে হবে'— এ ধরনের নানা স্লোগানে কম্পিত হয় শাহজাদপুর পৌর শহর।

এর আগে প্রতিবাদ সভায় বক্তরা বলেন, গত বছরের ২ ফেব্রুয়ারি প্রকাশ্য দিবালোকে পেশাগত দায়িত্ব পালনের সময় সাংবাদিক আব্দুল হাকিমকে গুলি করে হত্যা করা হয়। এ হত্যা মামলাটি ১১ মাসেও বিচার কার্যক্রম শুরু না হওয়ায় সাংবাদিকদের মাঝে হতাশা নেমে এসেছে।

বক্তারা দাবি করেন, একটি কুচক্রীমহল আলোচিত সাংবাদিক শিমুল হত্যা মামলাটিকে ভিন্ন খাতে প্রবাহের চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে।

বক্তারা আরো বলেন, বেলকুচি পৌর মেয়র বেগম আশানুর বিশ্বাসের ওপর হামলা ও পৌরসভা কার্যালয় ভাংচুরের মামলাটি গত ১৫ ডিসেম্বর বেলকুচি থানায় চাঁদাবাজি মামলা হিসেবে রেকর্ড করা হয়। কিন্তু, সেটি সিরাজগঞ্জ চিফ জুডিশিয়াল আদালতে আবেদনের প্রেক্ষিতে মাত্র ১০ দিনের মাথায় দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালে স্থানান্তর করা হয়। অথচ চাঞ্চল্যকর শিমুল হত্যা মামলাটি গত ১১ মাসেও দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালে স্থানান্তর করা হচ্ছে না, যদিও স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম শাহজাদপুরে প্রয়াত সাংবাদিক শিমুলের স্বজনদের দেখতে এসে মামলাটি দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালে স্থানান্তর করার প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন।

মামলাটি দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালে স্থানান্তরে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ও আইনমন্ত্রীসহ আইন সচিবের প্রতি অনুরোধ জানান বক্তারা। 

উল্লেখ্য, গত বছরের ২ ফেব্রুয়ারি পেশাগত দায়িত্ব পালন করতে গিয়ে শাহজাদপুরের বহিষ্কৃত ও আলোচিত মেয়র হালিমুল হক মিরুর গুলিতে আহত হয়ে পরদিন মারা যান সাংবাদিক শিমুল। এ ঘটনায় মিরু ও তার সহোদর মিন্টুসহ ৩৮ জনের বিরুদ্ধে আদালত বরাবর চার্জশিট দাখিল করেছে পুলিশ। মিরু কারাগারে থাকলেও সহোদর মিন্টুসহ এ মামলার ২৯ জুন উচ্চ আদালত থেকে জামিনে মুক্ত পান। বাকি ৮ জন এখনও পলাতক। মামলাটি এরই মধ্যে ‘রেডি-ফর-ট্রায়ালে’র জন্য শাহজাদপুর আমলা আদালত থেকে জেলা ও দায়রা জজ আদালতে স্থানান্তর করা হয়েছে। আগামী ২৫ জানুয়ারি এ মামলার পরবর্তী শুনানির দিন ধার্য রয়েছে।

এসকে 

 
 
 
   
  Print  
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
Study in RUSSIA
 
আরও খবর

 
 
 
 
 

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : নিন্দ্রা ভৌমিক

খবর প্রেরণ করুন # info.eibela@gmail.com

ফোন : +8801517-29 00 02

a concern of Eibela Foundation

Request Mobile Site

 

 

Copyright © 2018 Eibela.Com
Developed by: coder71