সোমবার, ১৮ ডিসেম্বর ২০১৭
সোমবার, ৪ঠা পৌষ ১৪২৪
 
 
বিএনপি ভাগাভাগির প্রেসক্লাব চায় না:রিপন
প্রকাশ: ০৫:৫৭ pm ০২-০৬-২০১৫ হালনাগাদ: ০৫:৫৭ pm ০২-০৬-২০১৫
 
 
 


বিএনপির ভাগাভাগির প্রেসক্লাব চায় না বলে জানিছেন দলটির মুখপাত্র ও আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক ড. আসাদুজ্জামান রিপন। তিনি বলেন, দেশের গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারে জাতীয় প্রেস ক্লাবের গৌরবজ্জল ভূমিকা রয়েছে। বিএনপি ভাগাভাগির রাজনীতিতে বিশ্বাস করে না। তাই আমরা ভাগাভাগির প্রেস ক্লাব চাই না। প্রেস ক্লাবে নির্বাচনের মাধ্যমেই নেতৃত্ব দেখতে চায় বিএনপি।

বিএনপির মুখপাত্র বলেন, জাতীয় প্রেস ক্লাবের নির্বাচিত কমিটিকে সরিয়ে অনির্বাচিত ব্যক্তিদের নেতৃত্বে বসানো হয়েছে। এতে আবারও প্রমাণিত হয়, সরকার জলাতঙ্ক রোগের মত ভোটাতংকে ভুগছে। আমরা জাতীয় প্রেস ক্লাবে নির্বাচনের মাধ্যমেই নেতৃত্বে দেখতে চাই।’

মঙ্গলবার দুপুরে রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে জাতীয় প্রেস ক্লাবের জটিলতা নিয়ে বিএনপির অবস্থান তুলে ধরতে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন। সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন, বিএনপির যুব বিষয়ক সম্পাদক সৈয়দ মোয়াজ্জে হোসেন আলাল, সহ সাংগঠনিক সম্পাদক অ্যাডভোকেট আব্দুস সালাম আজাদ, সহ স্বেচ্ছাসেবক বিষয়ক সম্পাদক এবি এম মোশাররফ হোসেন প্রমুখ।

আসাদুজ্জামান রিপন বলেন, ‘সম্প্রতি জাতীয় প্রেস ক্লাবের ব্যবস্থপনা কমিটি নিয়ে বিরোধ-বিভেদ তৈরি হয়েছে। বিভিন্ন আলোচনা হচ্ছে। আমরা শুনেছি- সেখানে আওয়ামী লীগ ও বিএনপির সাংবাদিকরা মিলে একটি কমিটি গঠন করে নির্বাচিত কমিটিকে সরিয়ে দিয়েছে। আমরা যেমন এটাকে জাতীয়তাবাদী প্রেস ক্লাব হিসেবে দেখতে চাই না, তেমনি একে আওয়ামী প্রেস ক্লাব হিসেবেও দেখতে চাই চাই না।’

দেশে সুশিল সমাজের জোড়ালো কোন কার্যকারিতা নেই বুঝাতে বিএনপির এই নেতা বলেন, ‘আগে বিভিন্ন পেশাজীবী সংগঠন, বুদ্ধিজীবী ও সুশীল সমাজ জাতীয় রাজনীতিতে ব্যাপক প্রভাব রাখত। স্বৈরাচার এরশাদের সময় ৩১জন বুদ্ধিজীবীর একটি বিবৃতি স্বৈরাচারের ভিতকে কাঁপিয়ে দিয়েছিল। কিন্তু এখন ৩১জন নয়, ৩১শ বুদ্ধিজীবীর বিবৃতিও রাজনীতি বা সরকারের উপর চাপ সৃষ্টি করতে পারে না। এখন দেশে কার্যত সুশীল সমাজ বলেই কিছু নেই।’

সাংবাদিকদের এক প্রশ্নে রিপন বলেন, প্রেস ক্লাবের কমিটিতে আওয়ামী লীগের সঙ্গে বিএনপির যারা আছেন, তাদেরকে আমরা বিএনপির লোক বলে ভাবতে চাই না। কারণ দেশের প্রধান বিচারপতি বা সরকারের বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের প্রধানরাও যখন জাতীয় নির্বাচনে ভোট দিতে যান, তখন তারাও কোনো না কোনো রাজনৈতিক দলকেই ভোট দেন। কিন্তু তা কোনো ধর্তব্য বিষয় নয়। সাংবাদিকদের আমরা সাংবাদিক হিসেবেই দেখতে চাই। সেখানে কে আওয়ামী লীগ, কে বিএনপি তা তার মতাদর্শে থাকতেই পারে, কিন্তু জাতীয় প্রেস ক্লাবে যেন কোনো রাজনৈতিক পরিচয় মূখ্য হয়ে না উঠে।’

এইবেলা ডটকম/ ইএস
 
 
 
   
  Print  
 
 
 
 
Loading...
 
 
 
 
 
 
 
 
 
Loading...
 
আরও খবর

 
 
 
 
 

সম্পাদক: সুকৃতি কুমার মন্ডল

Editor: ‍Sukriti Kumar Mondal

সম্পাদকের সাথে যোগাযোগ করুন # sukritieibela@gmail.com

খবর প্রেরণ করুন # info.eibela@gmail.com

a concern of Eibela Foundation

Request Mobile Site

   বিজ্ঞাপনের জন্য যোগাযোগ:

 E-mail: sukritieibela@gmail.com

  মোবাইল: +8801711 98 15 52 

            +8801517-29 00 01

 

 

Copyright © 2017 Eibela.Com
Developed by: coder71