মঙ্গলবার, ২৩ এপ্রিল ২০১৯
মঙ্গলবার, ১০ই বৈশাখ ১৪২৬
সর্বশেষ
 
 
বাঁশখালীর সেই ১১ হিন্দু পুড়িয়ে হত্যা মামলার মূলহোতা গ্রেপ্তার
প্রকাশ: ১০:৫৭ pm ৩১-০৩-২০১৮ হালনাগাদ: ১০:৫৭ pm ৩১-০৩-২০১৮
 
চট্টগ্রাম প্রতিনিধি
 
 
 
 


দেশ-বিদেশে আলোচিত বাঁশখালীর ১১ হিন্দু পুড়িয়ে হত্যা মামলার অন্যতম আসামি দুর্ধর্ষ ডাকাত মো. জসিম উদ্দিন প্রকাশ জসিম(৩৮)কে গত শুক্রবার সকাল ৯টায় উত্তেজিত জনতা গণপিটুনি দিয়ে পুলিশে সোর্পদ করেছে। এছাড়াও জসিমের বিরুদ্ধে পুলিশের উপর হামলা, ডাকাতি, হত্যা ও সন্ত্রাসী ঘটনার অভিযোগে আরও ৮টি মামলা রয়েছে। আহত অবস্থায় ডাকাত জসিমকে বাঁশখালী হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

জসিম উদ্দিন খানখানাবাদ ইউনিয়নের ডোংরা গ্রামের মৃত আব্দুর শুক্কুরের পুত্র। পুলিশ তাকে গ্রেপ্তার করার পর এলাকায় স্বস্তি ফিরে এসেছে। সে দীর্ঘদিন ধরে প্রকাশ্যে এলাকায় অস্ত্র মহড়া দিয়ে নানাভাবে মানুষকে ভয়ভীতি দেখিয়ে ডাকাতি, সন্ত্রাস ও চাঁদাবাজি করে আসছিল।

পুলিশ ও গ্রামবাসী সূত্রে জানা গেছে, মো. জসিম উদ্দিন প্রকাশ শুক্রবার ৯টায় বাহারছড়া ই্উনিয়নের রায়ছটা গ্রামে একটি চা’য়ের দোকানে বসে বিভিন্ন মানুষের নাম ধরে গালিগালাজ করছিল। ওই সময় উত্তেজিত জনতা ক্ষিপ্ত হয়ে তাকে আটক করে বেধড়ক পিটায়। এসময় তার মাথার পিছনের অংশসহ শরীরের বিভিন্নস্থানে জখম হয়। পরে উত্তেজিত জনতা পুলিশকে খবর দিলে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে জসিমকে গ্রেপ্তার করে বাঁশখালী হাসপাতালে ভর্তি করেন।

স্থানীয় বাসিন্দারা বলেন, জসিমের কাছে ভারী অস্ত্র রয়েছে। সে এতদিন পুলিশের চোখ ফাঁকি দিয়ে অস্ত্রের মহড়া অবস্থায় গ্রামে ঘুরে বেড়াত। তাই গ্রামবাসীও ভয়ে মুখ খুলতো না। শুক্রবার অস্ত্র ছাড়া দোকানে পেয়ে গ্রামবাসী আটক করতে সক্ষম হয়েছে। তাকে রিমান্ডে নিলে ব্যাপক অস্ত্র উদ্ধার হবে।
হাসপাতাল বেডে শোয়া অবস্থায় জসিম উদ্দিন প্রকাশ ডাকাত এ প্রতিবেদককে জানান, ‘১১ হত্যাসহ বিভিন্ন মামলায় দীর্ঘদিন জেল কেটে সে দুই বছর আগে জামিনে বের হয়েছে। মামলার হাজিরা না দেয়ায় তার বিরুদ্ধে আবারো ওয়ারেন্ট ইস্যু হয়েছে। তাই সে পালিয়ে বেড়াচ্ছিল।’

বাঁশখালী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. সালাহ উদ্দিন বলেন, ‘উত্তেজিত জনতা আটক করার পর গণপিটুনি দেয়ার খবর পেলে পুলিশ জনতার কবল থেকে জসিমকে উদ্ধার করে বাঁশখালী হাসপাতালে ভর্তি করিয়েছে। তাকে গ্রেপ্তার দেখানো হয়েছে।’

নি এম/

 
 
 
   
  Print  
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
আরও খবর

 
 
 
 
 

সম্পাদক : সুকৃতি কুমার মন্ডল 

 খবর প্রেরণ করুন # info.eibela@gmail.com

ফোন : +8801517-29 00 02

+8801711-98 15 52

a concern of Eibela Foundation

Request Mobile Site

 

 

Copyright © 2019 Eibela.Com
Developed by: coder71