বুধবার, ১৪ নভেম্বর ২০১৮
বুধবার, ৩০শে কার্তিক ১৪২৫
 
 
বরগুনায় পূজা উদযাপন কমিটির সভাপতি সূজন পালের ওপর হামলা
প্রকাশ: ০৩:০৮ pm ১০-১০-২০১৮ হালনাগাদ: ০৩:০৮ pm ১০-১০-২০১৮
 
বরগুনা প্রতিনিধি     
 
 
 
 


বরগুনার বামনা উপজেলার ডৌয়াতলা ইউনিয়নের ডৌয়াতলা বাজার সার্বজনীন শ্রীশ্রী দুর্গা মন্দিরের সভাপতি ও ডৌয়াতলা ইউনিয়ন পূজা পরিষদের সভাপতি সূজন পাল-এর ওপর হামলার ঘটনা ঘটেছে।

উপজেলা যুবলীগ সাংগঠনিক সম্পাদক মো. সাদিকুর রহমান ও ইউনিয়ন যুবলীগ নেতা মো. আজাদের নেতৃত্বে এ হামলা চালিয়ে তাকে গুরুতর জখম করা হয় বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ সময় আরো আহত হয় বাপ্পী সাহা নামে এক যুবক। আহতদের বামনা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

মঙ্গলবার দুপুরে ডৌয়াতলা বাজারে ঘটনাটি ঘটে। 

এ ঘটনার প্রতিবাদে বামনা উপজেলা পূজা উদযাপন পরিষদ উপজেলার সকল পূজা মণ্ডপের আসন্ন দুর্গা উৎসব বন্ধের ঘোষণা দেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন বামনা উপজেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সাধারণ সম্পাদক সঞ্জয় কর্মকার।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, মঙ্গলবার সকালে ডৌয়াতলা সমবায় বহুমূখী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের পেছনের খাস খতিয়ানের জমিতে ঘর তোলা নিয়ে বাক বিতণ্ডা ঘটে। এক পর্যায়ে এই বাক বিতণ্ডা সংঘর্ষে রুপ নেয়। স্থানীয়দের সহায়তায় সংঘর্ষ বন্ধ হলে বামনা উপজেলা পূজা পরিষদের নেতৃবৃন্দ, হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদেও নেতৃবৃন্দ, জাতীয় যুব মহাজোটের নেতৃবৃন্দ ও উপজেলার জাতীয় শ্রমিক লীগের নেতৃবৃন্দ বেলা ১২টার দিকে ডৌয়াতলা বাজারে পরিদর্শনে যায়। সেখানে স্থানীয় হিন্দু সম্প্রদায়েরা সূজন পালের ওপর হামলা প্রতিবাদ করে বাজারে একটি মিছিল বের করে। ওই মিছিলে যুবলীগ সাংগঠনিক সম্পাদক মো. সাদিকুর রহমান সাদেক এর নেতৃত্বে ইউনিয়ন ছাত্রলীগ ও যুবলীগের ১০-১২জন নেতা ওই প্রতিবাদ মিছিলে ওপর হামলা চালায়।

ওই ঘটনার পর পরই বামনা উপজেলা জাতীয় শ্রমিক লীগের নেতৃবৃন্দ, উপজেলা পূজা পরিষদের নেতৃবৃন্দ এবং হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের নেতৃবৃন্দরা উপজেলা সদরে এসে বামনা উপজেলা কেন্দ্রীয় মন্দিরে এক জরুরি সভা করেন। সভায় দুর্বত্তদের গ্রেপ্তার করে বিচারের আওতায় না আনা পর্যন্ত আসন্ন দুর্গা উৎসবের সকল কার্যক্রম বন্ধ রাখার ঘোষণা দেন।

এ ব্যাপারে বামনা উপজেলা হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের সাধারণ সম্পাদক বাবু মানিক কুমার পংকজ জানান, আমরা ডৌয়াতলা বাজারে যাওয়ার পরে একদল দুর্বৃত্ত স্থানীয় হিন্দু সম্প্রদায়ের ওপরে হামলা চালায়।

এ ঘটনা বামনা থানা অফিসার ইনচার্জ জি এম শাহ নেওয়াজকে জানালে তিনি তাকে বলেন, আপনারা ওখানে গেছেন, আমাকে অবহিত করেননি।

এ ছাড়া তিনি আরো বলেন, আপনাদের এখন আর সময় নেই, আপনাদের দিন শেষ হয়ে গেছে। এ ঘটনারও তীব্র নিন্দা জানানো হয় এবং হামলাকারীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করেন তিনি।

বামনা উপজেলা পূজা পরিষদের সভাপতি অঞ্জন চ্যাটার্জী বলেন, হামলাকারীদের গ্রেপ্তার করে বিচারের আওতায় না আনা পর্যন্ত বামনা উপজেলায় আসন্ন দুর্গা উৎসবের সকল কার্যক্রম বন্ধ থাকবে।

বামনা থানা অফিসার ইনচার্জ জি এম শাহ নেওয়াজ বলেন, আমি সরকারি কাজে বাহিরে ছিলাম। ঘটনার জানার সাথে সাথে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। পরিস্থিতি এখন নিয়ন্ত্রণে আছে।

নি এম/

 
 
 
   
  Print  
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
Study in RUSSIA
 
আরও খবর

 
 
 
 
 

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : নিন্দ্রা ভৌমিক

খবর প্রেরণ করুন # info.eibela@gmail.com

ফোন : +8801517-29 00 02

a concern of Eibela Foundation

Request Mobile Site

 

 

Copyright © 2018 Eibela.Com
Developed by: coder71