বুধবার, ০৫ অক্টোবর ২০২২
বুধবার, ২০শে আশ্বিন ১৪২৯
সর্বশেষ
 
 
নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের দাম সহনীয় পর্যায়ে: বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি
প্রকাশ: ০৮:২০ pm ০১-০৯-২০২২ হালনাগাদ: ০৮:২০ pm ০১-০৯-২০২২
 
এইবেলা ডেস্ক
 
 
 
 


নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের দাম সহনীয় পর্যায়ে রয়েছে বলে দাবি করেছেন বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি। জাতীয় পার্টির মুজিবুল হকের প্রশ্নের জবাবে নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্যের মূল্য ভোক্তাদের নাগাদের মধ্যে রাখতে বিভিন্ন পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়েছে উল্লেখ করে বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি বলেন, কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণের ফলে ভোজ্য তেলসহ অন্যান্য নিত্যপণ্যের মূল্য স্থিতিশীল ও সহনীয় পর্যায়ে রয়েছে।

স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে বৃহস্পতিবার (১ সেপ্টেম্বর) জাতীয় সংসদে টেবিলে উত্থাপিত প্রশ্নোত্তরে মন্ত্রী এসব কথা বলেন।

এবাদুল করিমের প্রশ্নের জবাবে বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি জানান, ২০২১-২২ অর্থ বছরে বাংলাদেশ ২০৩টি দেশে পণ্য রফতানি করেছে। এর মধ্যে ৯১টি দেশের সাথে বাংলাদেশের বাণিজ্য ঘাটতি রয়েছে এবং ১১২টি দেশের সাথে বাণিজ্য ভারসাম্য বাংলাদেশের অনুকূলে রয়েছে। এ অর্থ বছরে রফতানির পরিমাণ ৬০ হাজার ৯৭১ দশমিক ২৬ মিলিয়ন ডলার আর আমদানি ৮২ হাজার ৫০০ মিলিয়ন মার্কিন ডলার। অর্থাৎ ২০২১-২২ অর্থ বছরে বাণিজ্য ঘাটতি ২১ হাজার ৫২৮ দশমিক ৭৪ মিলিয়ন মার্কিন ডলার।

বেনজীর আহমেদের প্রশ্নের জবাবে বাণিজ্যমন্ত্রী জানান, ২০২১-২২ অর্থ বছরে সার্কভুক্ত দেশগুলোর সাথে বাণিজ্য ঘাটতির পরিমাণ ১১ হাজার ৯৮৬ দশমিক ৯৮ মিলিয়ন মার্কিন ডলার। এ অর্থ বছরে চীনের সাথে বাণিজ্য ঘাটতি ১৯ হাজার ৩৫৩ দশমিক ৩৭ মিলিয়ন মার্কিন ডলার। মন্ত্রী জানান, সরকারের প্রচেষ্টায় ১ সেপ্টেম্বর থেকে চীনের বাজারে ৮৯৩০টি পণ্য (৯৮%) শুল্কমুক্ত কোটা মুক্ত প্রবেশাধিকার সুবিধা পেয়েছে। এরফলে চীনে রফতানি বৃদ্ধি পাবে, কমবে বাণিজ্য ঘাটতি।

খাদ্যশস্য মজুদ ১৯ লাখ ৫০ হাজার ৫৩১ মেট্রিক টন

আলী আজমের প্রশ্নের জবাবে খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার জানান, বর্তমানে (৩০ আগস্ট ২০২২) দেশে ১৯ লাখ ৫০ হাজার ৫৩১ মেট্রিক টন খাদ্যশস্য মজুদ আছে। এর মধ্যে ১৭ লাখ ৩৩ হাজার ৩০০ মেট্রিক টন চাল, এক লাখ ৪১ হাজার ১১৮ মেট্রিক টন গম ও এক লাখ ১৭ হাজার ৯৭ মেট্রিক টন ধান।

তিনি জানান, জি টু জি (সরকার টু সরকার) পদ্ধতিতে রাশিয়া থেকে গম এবং ভারত, মিয়ানমার ও ভিয়েতনাম হতে চাল আমদানির উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।

একই সংসদ সদস্যের অপর এক প্রশ্নের জবাবে খাদ্যমন্ত্রী জানান, দেশের ১৬.৫২ কোটি মানুষের মোট খাদ্যশস্য গ্রহণের প্রয়োজন ২৩৩ দশমিক ৩৫ লাখ মেট্রিক টন। এর মধ্যে ২২১ দশমিক ৪১ লাখ মেট্রিক টন চাল ও ১১ দশমিক ৯৪ লাখ মেট্রিক টন গম। ২০২১-২২ অর্থ বছরে খাদ্যশস্যের উৎপাদন হয়েছে ৩৮৯ দশমিক ২৯ লাখ মেট্রিক টন। যা চাহিদার ‍তুলনায় বেশি।

দেশে খাদ্য সংকটের কোন আশঙ্কা নেই উল্লেখ করে মন্ত্রী জানান, জাতীয় খাদ্য ও পুষ্টি নিরাপত্তা নীতি অনুসারে দেশে ১০ দশমিক ৫০ লাখ মেট্রিক টন খাদ্যশস্য নিরাপত্তা মজুত রাখার কথা থাকলেও বর্তমানে এর চেয়ে বেশি মজুত রয়েছে।

রুস্তম আলী ফরাজী প্রশ্নের জবাবে খাদ্যমন্ত্রী জানান, ২০২১-২২ অর্থ বছরে ১৫ লাখ ৪৪ হাজার ১৪৫ দশমিক ৮ মেট্রিক টন চাল, ১৯ লাখ ৯৫ হাজার ৫৩৯ দশমিক ৬ মেট্রিক টন ভোজ্য তেল, ছয় লাখ ৯৯ হাজার ১২৯ দশমিক ৩ মেট্রিক টন পেঁয়াজ ও ৫৪ হাজার ২৩৭ দশমিক ৬ মেট্রিক টন রসুন আমদানি করা হয়েছে।

মসিউর রহমান রাঙ্গার প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী জানান, ২০২১-২২ অর্থ বছরে ৬৭ লাখ ২ হাজার ৬৮৮ দশমিক ৫ মেট্রিক টন গম, ২৭ লাখ ৭৭ হাজার ৪৬৮ দশমিক ৮ মেট্রিক টন তেলবীজ, ২৭ লাখ ৮ হাজার ৪৯ মেট্রিক টন চিনি, তিন লাখ ৬৩ হাজার ১০৭ দশমিক ৫ মেট্রিক টন মশলা, ১২ লাখ ৪৮ হাজার ৩৯২ দশমিক ৭ মেট্রিক টন ডাল, ১২ লাখ ৩৬ হাজার ১৩১ দশমিক ৪ মেট্রিক টন ফলমূল, এক লাখ ৫৬ হাজার ২৪৬ দশমিক ২ মেট্রিক টন দুগ্ধজাত পণ্য আমদানি করা হয়েছে।

বেগম নাজমা আকতারের প্রশ্নের জবাবে প্রবাসী কল্যাণমন্ত্রী জানান, প্রবাসী কল্যাণ ডেস্কের তথ্য অনুসারে করোনাকালে ২০২০ সালে চার লাখ ৮ হাজার ৪০৮ জন কর্মী বিদেশ থেকে ফেরত এসেছে। এছাড়া ২০২১ সালে মে পর্যন্ত ৩৪ হাজার ৪৯৪ জন কর্মী আউটপাস নিয়ে ফেরত এসেছে।

নুরুন্নবী চৌধুরীর প্রশ্নের জবাবে প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রী জানান, ২০০৮-০৯ অর্থ বছর হতে ২০২০-২১ অর্থ বছরে পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে ৭৩ লাখ ১৯ হাজার ৩১৬ জন কর্মী পাঠানো হয়েছে। মন্ত্রীর তথ্য অনুযায়ী সব চেয়ে বেশি গেছে ২০১৬-১৭ অর্থ বছরে আট লাখ ৯৩ হাজার ৭৩৯ জন। এবং সব চেয়ে কম গেছে ২০২০-২১ অর্থ বছরে দুই লাখ ৭১ হাজার ৪৪৫ জন।

বেগম নাজমা আকতারের প্রশ্নের জবাবে প্রবাসী কল্যাণমন্ত্রী জানান, প্রবাসী কল্যাণ ডেস্কের তথ্য অনুসারে করোনাকালে ২০২০ সালে চার লাখ ৮ হাজার ৪০৮ জন কর্মী বিদেশ থেকে ফেরত এসেছে। এছাড়া ২০২১ সালে মে পর্যন্ত ৩৪ হাজার ৪৯৪ জন কর্মী আউটপাস নিয়ে ফেরত এসেছে।

 
 
 
   
  Print  
 
 
 
 
 
 
 
 
আরও খবর

 
 
 

 

E-mail: info.eibela@gmail.com

a concern of Eibela Ltd.

Request Mobile Site

Copyright © 2022 Eibela.Com
Developed by: coder71