মঙ্গলবার, ২৭ অক্টোবর ২০২০
মঙ্গলবার, ১২ই কার্তিক ১৪২৭
সর্বশেষ
 
 
গিনেস বুকে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার পার্থ চন্দ্র দেব
প্রকাশ: ১০:৩২ pm ২৬-০৯-২০২০ হালনাগাদ: ১০:৩২ pm ২৬-০৯-২০২০
 
ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি
 
 
 
 


সেফটিপিন দিয়ে পৃথিবীর সবচেয়ে বেশি দৈর্ঘ্যের চেইন তৈরি করে গিনেস বুক অব ওয়ার্ল্ড রেকর্ডসে নাম লেখালেন ব্রাহ্মণবাড়িয়ার পার্থ চন্দ্র দেব। 

গত ১৭ সেপ্টেম্বর ডাকযোগে তার কাছে বিশ্ব রেকর্ডের স্বীকৃতির সনদ এসে পৌঁছায়।

পার্থ জানান, নিজেদের পারিবারিক ব্যবসা দেখাশোনা ও পড়াশোনার পাশাপাশি নতুন কিছু করার তাগিদ অনুভব করে তিনি। গুগলে সার্চ করে জানতে পারেন, ২০১৮ সালে ভারতের গুজরাটে হার্শা নান ও নাভা নান নামের দুই যুবক ১ হাজার ৭৩৩ দশমিক ১ মিটার দৈর্ঘ্যের পৃথিবীর সবচেয়ে দীর্ঘ চেইন তৈরি করে গিনেস বুক অব ওয়ার্ল্ড রেকর্ডসে নাম অন্তর্ভুক্ত করেন।

এই রেকর্ড অতিক্রম করে নতুন বিশ্ব রেকর্ডের স্বপ্ন বাস্তবায়নের লক্ষ্য নিয়ে ২০১৯ সালের ২৩ জুলাই কাজ শুরু করেন পার্থ চন্দ্র দেব। নিজেদের ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের ১ লাখ ৮৭ হাজার ৮২৩টি সেফটিপিন দিয়ে একের পর এক সংযোগ স্থাপন চেইন তৈরি করেন। চেইনটি তৈরি করতে তার ৪৫ দিন ব্যয় হয়েছে। সময় লেগেছে ২৪১ ঘণ্টা ৪২ মিনিট।

তিনি জানান, সময়ের হিসাব করার জন্য সিসি ক্যামেরার ফুটেজ ব্যবহার করা হয়েছে। কারো সাহায্য ছাড়া নিজেই ২ হাজার ৪০১ দশমিক ৮৩ মিটার চেইন তৈরির পুরো কাজটি সম্পন্ন করেন তিনি। গত ২০১৯ সালের ৬ সেপ্টেম্বর শুক্রবার তার তৈরি চেইনটি তার নিজ এলাকা ফান্দাউক শ্রীশ্রী পাগল শংকর মন্দির প্রাঙ্গণে প্রদর্শন করেন। সে সময় ফান্দাউক গ্রামের প্রভাষক রাজীব আচার্য্য, পল্লব হালদার এবং সার্ভেয়ার মারজান শাহকে সঙ্গে নিয়ে চেইনটির দৈর্ঘ্যের পরিমাণ করা হয়।

সফলভাবে পরীক্ষা সম্পন্ন করে ইমেইল মারফত তথ্য পাঠানো হয় গিনেস বুক কর্তৃপক্ষের কাছে। পরে চলতি বছরের ১২ ফেব্রুয়ারি রাতে ৯টা ১ মিনিট গিনেস বুক অফ ওয়ার্ল্ড রেকর্ডসে পার্থ চন্দ্র দেবের নাম স্থান পায়।

পার্থ বর্তমানে ব্রাহ্মণবাড়িয়া সরকারি কলেজে বিএসএস (ডিগ্রি) শেষ বর্ষের ছাত্র। ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নাসিরনগর উপজেলার ফান্দাউক ইউনিয়নের ফান্দাউক গ্রামের প্রয়াত জগদীশ দেবের ছোট ছেলে পার্থ।

নি এম/

 
 
 
   
  Print  
 
 
 
 
 
 
 
 
আরও খবর

 
 
 

 

E-mail: info.eibela@gmail.com

a concern of Eibela Ltd.

Request Mobile Site

Copyright © 2020 Eibela.Com
Developed by: coder71