শুক্রবার, ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৮
শুক্রবার, ১১ই ফাল্গুন ১৪২৪
 
 
 হবিগঞ্জের মন্দিরটি এখন জমিদার বাড়ির স্মৃতির স্মারক
প্রকাশ: ০৩:০৯ pm ২১-০৯-২০১৭ হালনাগাদ: ০৩:০৯ pm ২১-০৯-২০১৭
 
এইবেলা ডেস্ক
 
 
 
 


জমিদারি প্রথা বিলুপ্ত হয়ে গেছে অনেক আগে। জমিদারি হারিয়ে গেলেও রয়ে গেছে জমিদার বাড়ি। তারই একটি হবিগঞ্জের চুনারুঘাট উপজেলার দুর্গাপুরের গোলক চন্দ্র দত্ত জমিদার বাড়ি।

পুকুরওয়ালা বিশাল বাড়ি। সামনে ফসলের মাঠ। নিরব ছায়াঘেরা এ বাড়ির সামনে প্রাচীন মন্দির। নাম কৃষ্ণকালি মন্দির। গোলক চন্দ্র দত্ত জমিদার বাড়ির স্মৃতি হয়ে আছে এই মন্দির। সম্প্রতি সংস্কার করায় মন্দিরের উজ্জ্বলতা বেড়েছে। মন্দিরে ভক্তরা এসে পূজার্চনায় মগ্ন হচ্ছেন।

জমিদার বাড়ির বংশধর সুনীল দত্ত বলেন, ‘জমিদারি চলে গেলেও আমরা জমিদারের ঐতিহ্যকে পালন করার চেষ্টা করছি। এ বাড়িতে শত বছর ছাড়িয়ে বসবাস আমাদের।’

তিনি আরও বলেন, ‘তার পূর্ব পুরুষ গোলক চন্দ্র দত্ত’র পর পূর্ণ চন্দ্র দত্ত, মহেন্দ্র চন্দ্র দত্ত, উপেন্দ্র চন্দ্র দত্ত, যতীন্দ্র চন্দ্র দত্ত, গিরিন্দ্র চন্দ্র দত্ত -এরাও প্রজাদের কাছ থেকে খাজনা সংগ্রহ করেছেন। এখানের দুর্গাপুর, মাধবপুর, কাছিশাইল, বালিয়ারী, গোপালপুরসহ বিস্তীর্ণ এলাকা ছড়িয়ে ছিল এ বাড়ির জমিদারি ।’

‘এক সময় জমিদারি বিলুপ্ত হয়ে যায়। এ বাড়িব অনেকেই চলে যান কলকাতায়। তারা এখনও সেখানে বসবাস করছেন। ঐতিহ্যের টানে আমরা ছিটে ফোটা রয়ে গেছি।’

তিনি বলেন, ‘এক সময়ে এ জমিদার বাড়ির মন্দিরকে ঘিরে নানা উৎসব হতো। জমিদাররাই এসব উৎসবের আয়োজন করতেন। উৎসবে মুখরিত হতো এ বাড়ি’র প্রাঙ্গণ। হতো পুঁথি পাঠ, কীর্তণসহ নানা আয়োজন। এগুলো এখন নেই। তবে প্রতি বছর অগ্রহায়ণ মাসে তিনদিনব্যাপী উৎসব হয়। এতে শত শত মানুষ অংশগ্রহণ করেন।’

এ জমিদার বাড়ির মন্দিরটি ঘিরে এখনো অব্যাহত রয়েছে মানুষের আসা-যাওয়া। এ বাড়ি’র প্রতিবেশী সুজিৎ রঞ্জন দাশগুপ্ত বলেন, ‘এ মন্দিরের ইতিহাস রয়েছে। মন্দিরটি হিন্দু ধর্মের লোকদের প্রিয় স্থান।’

মন্দিরে আসা অপু দেব জানান, মন্দিরে তিনি প্রায়ই আসেন। তার মতো আরো অনেকেই এখানে আসেন। তবে আগতদের সুবিধার জন্য আরো সংস্কারমূলক উদ্যোগ নেওয়ারও দাবি জানান অপু দেব।

নি এম/

 
 
 
   
  Print  
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
আরও খবর

 
 
 
 
 

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : নিন্দ্রা ভৌমিক

খবর প্রেরণ করুন # info.eibela@gmail.com

ফোন : +8801517-29 00 02

a concern of Eibela Foundation

Request Mobile Site

 

 

Copyright © 2018 Eibela.Com
Developed by: coder71