eibela24.com
শনিবার, ১৮, সেপ্টেম্বর, ২০২১
 

 
বিপ্লবী ক্ষুদিরাম বসুর ১৩১-তম জন্মবর্ষে বিনম্র শ্রদ্ধা
আপডেট: ০২:৫৫ pm ০৪-১২-২০২০
 
 


সর্বভারতীয় জাতীয় মুক্তিসংগ্রামের অন্যতম শ্রেষ্ঠ বিপ্লবী ক্ষুদিরাম বসুর ১৩১-তম জন্মবর্ষে বিনম্র শ্রদ্ধা!

১৮৮৯ খ্রীস্টাব্দের ৩রা ডিসেম্বর ক্ষুদিরাম বসু তৎকালীন অখণ্ড ভারতের বেঙ্গল প্রেসিডেন্সির অন্তর্গত মেদিনীপুরের কেশপুর থানার মৌবনী গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন।

তাঁর পিতা ত্রৈলোক্যনাথ বসু ছিলেন নাড়াজোলের তহসিলদার আর মায়ের নাম লক্ষ্মীপ্রিয় দেবী। তিন কন্যার পর পিতা-মাতার চতুর্থ সন্তান ক্ষুদিরাম বসু।

তাঁদের দুই পুত্র অকালে মৃত্যুবরণ করায় অপর পুত্রের মৃত্যুর আশঙ্কায় পিতা-মাতা তখনকার সমাজের নিয়ম অনুযায়ী তাঁর পুত্রকে তাঁর বড়ো দিদির কাছে তিন মুঠো খুদের (চালের খুদ) বিনিময়ে বিক্রি করে দেন।

খুদের বিনিময়ে কেনা হয়েছিল বলে শিশুটির নাম পরবর্তীকালে ক্ষুদিরাম রাখা হয়। ক্ষুদিরামের বয়স যখন মাত্র ছ-বছর তখন তিনি মাকে হারান। এক বছর পর তাঁর পিতার মৃত্যু হয়। তখন বড়ো দিদি অপরূপা তাকে দাসপুর থানাস্থ গ্রামের বাড়িতে নিয়ে যান। অপরূপার স্বামী অমৃতলাল রায় ক্ষুদিরামকে তমলুকের হ্যামিল্টন হাই স্কুলে ভর্তি করে দেন।

ক্ষুদিরাম বসু সর্বকনিষ্ঠ ভারতীয়-বাঙালি বিপ্লবী। যিনি ভারতে ব্রিটিশ শাসনের বিরোধিতা করে সহিংস তৎপরতা চালিয়েছিলেন। ১৯০৮-এর ১১ আগস্ট ফাঁসি হওয়ার সময় ক্ষুদিরামের বয়স ছিল ১৮ বছর ৭ মাস এবং ১১ দিন।

নি এম/