eibela24.com
বুধবার, ০৮, ডিসেম্বর, ২০২১
 

 
আদালতে স্বীকারোক্তি
বড় জায়ের সাথে বিরোধ; শিশু কন্যাকে পুকুরে ফেলে হত্যা
আপডেট: ১০:৫৯ pm ২৩-০৮-২০২০
 
 


জায়ের ওপর প্রতিশোধ নিতে দেড় বছরের শিশুকন্যাকে পানিতে ফেলে হত্যা করার কথা স্বীকার করেছে ঘটনায় অভিযুক্ত সুবেনা আক্তার। 

সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুর উপজেলার কলকলিয়া ইউনিয়নের তেলিকোনা গ্রামের সুবেনা শনিবার বিকেলে সুনামগঞ্জের ১ম শ্রেণীর জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে ১৬৪ ধারা জবানবন্দিতে স্বীকার করেছে। পরে আদালত তাকে জেল হাজতে পাঠায়।

জগন্নাথপুর থানার ভারপ্রাপ্ত (ওসি) ইখতিয়ার উদ্দিন চৌধুরী জানান, বড় জায়ের সাথে বিরোধের জের ধরে প্রতিশোধ নিতে তার ১৮ মাসের শিশু কন্যাকে পুকুরের পানিতে ফেলে হত্যার কথা ম্যাজিষ্ট্রেটের কাছে স্বীকার করেছে অভিযুক্ত সুবেনা। আমরা শিশুর বাবা রুমেন মিয়ার দায়ের করা মামলার আসামি হিসেবে তাকে গ্রেফতার করে জেল হাজতে পাঠানোর পাশাপাশি জবানবন্দি গ্রহণ করতে আদালতে পাঠালে সে স্বীকারোক্তিমুলক জবানবন্দি দেন।

পুলিশ ও এলাকাবাসীর সূত্র জানায়, উপজেলার কলকলিয়া ইউনিয়নের তেলিকোনা গ্রামের রুমেন মিয়ার স্ত্রী সাজেদা বেগমের সঙ্গে কয়েক দিন আগে দেবর পাবেল মিয়ার স্ত্রী সুবিনা আক্তারের তুচ্ছ বিষয় নিয়ে কথাকাটাকাটি ও হাতাহাতির ঘটনা ঘটে। পরে বিষয়টির নিস্পত্তি ঘটলেও বড় জায়ের ওপর প্রতিশোধ নিতে ছোট জা সুবিনা আক্তার বড় জায়ের ১৮ মাসের শিশু কন্যা সাদিয়া বেগমকে গত শুক্রবার সকালে বাড়ির পেছনে পুকুরের পানিতে ফেলে দেয়। এসময় প্রতিবেশী এক নারী বিষয়টি দেখে শিশুটির মাকে জানান। পরে পুকুর থেকে শিশুর লাশ উদ্ধার করা হয়। খবর পেয়ে পুলিশ লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য সুনামগঞ্জ মর্গে পাঠায়। এঘটনায় শিশুর বাবা রুমেন মিয়া ছোট ভাই পাবেল মিয়ার স্ত্রী সুবিনা আক্তার এর বিরুদ্ধে থানায় মামলা দায়ের করেন। পুলিশ অভিযুক্ত শিশুর চাচী সুবিনা আক্তার (২৫) কে গ্রেফতার করে জেল হাজতে পাঠায়।

শিশুর বাবা রুমেন মিয়া জানান, তুচ্ছ বিষয় নিয়ে আমার স্ত্রীর সঙ্গে আমার ছোট ভাইয়ের স্ত্রীর কথাকাটাকাটি হয়। এনিয়ে আমার স্ত্রীর ওপর প্রতিশোধ নিতে আমার শিশুকন্যাকে পানিতে ফেলে হত্যা করা হবে তা ভাবতে পারিনি। 

নি এম/