রবিবার, ৩০ এপ্রিল ২০১৭
রবিবার, ১৭ই বৈশাখ ১৪২৪
সর্বশেষ
 
 
শেরপুরে আন্তঃজেলা ডাকাত দলের ৪ সদস্যের আত্মসমর্পণ
প্রকাশ: ০৯:৫৮ am ১০-০১-২০১৭ হালনাগাদ: ০৯:৫৮ am ১০-০১-২০১৭
 
 
 


শেরপুর প্রতিনিধি: শেরপুরে পুলিশের আহবানে সাড়া দিয়ে আত্মসমর্পণ করেছে ৪ ডাকাত। ১০ জানুয়ারী আজ মঙ্গলবার সন্ধ্যায় ওই ৪ ডাকাত শেরপুর সদর থানায় পুলিশের কাছে আত্মসমর্পণ করেন।

এরা হচ্ছে সদর উপজেলার চরশেরপুর ইউনিয়নের বাসিন্দা নিজপাড়া গ্রামের মৃত জামালউদ্দিনের ছেলে খোরশেদ মিয়া (৬০), মৃত আব্দুল ওয়াহাবের ছেলে মো. লোকমান (৫০), উত্তরপাড়া গ্রামের কেরানীর ছেলে ছামেদুল ইসলাম (৩৫) ও নয়াপাড়া গ্রামের সমেজ উদ্দিনের ছেলে আমিনুল ইসলাম (৪২)।

পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, আত্মসমর্পণকারীরা  প্রায় দেড় যুগ ধরে ডাকাতির সাথে জড়িত ছিল। প্রত্যেকেই আন্তঃজেলা ডাকাত দলের সক্রিয় সদস্য। এদের প্রত্যেকের বিরুদ্ধে শেরপুর সদর থানাসহ দেশের বিভিন্নস্থানে ৭-১০টি করে মামলা রয়েছে।

এদের অত্যাচারে এক সময় জেলার মানুষ আতঙ্কে দিন কাটাত। সম্প্রতি শেরপুরের পুলিশ সুপার রফিকুল হাসান গনি ও সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুুপার খন্দকার লাবনী চরশেরপুর ইউনিয়ন কমিউনিটি পুলিশের সভাপতি ও স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেন সুরুজকে ওই ৪ ডাকাতকে স্বাভাবিক জীবনে ফিরিয়ে নিতে উদ্যোগ গ্রহণে উৎসাহিত করেন।

এরই প্রেক্ষিতে চেয়ারম্যান সুরুজ এবং সদর থানার ইন্সপেক্টর (তদন্ত) বিপ্লব কুমার বিশ্বাস ওই ৪ ডাকাতকে সুস্থ-স্বাভাবিক জীবনে ফিরে আসতে উদ্বুদ্ধ করেন। এক পর্যায়ে তাঁরা স্বাভাবিক জীবনে ফিরে আসতে আগ্রহী হন।

আত্মসমর্পণের পর ডাকাত দলের সদস্য খোরশেদ বলেন, মানুষের ক্ষতি কইরা আমগরে ভাল হয় নাই, শান্তিও পাওয়া যায় না। ২০ বছর ধইরা চুরি-ডাকাতি কইরা ভাগ্যের কোন পরিবর্তন হয় নাই।

বরং মামলা মোকদ্দমা আর জেল খাইট্যা জীবন শ্যাষ। এসপি স্যার আমগরে সহায়তার আশ্বাস দিছেন। আমরা ভাল হতে চাই। তাই আত্মসমর্পণ করেছি।

সহকারী পুলিশ সুুপার (সার্কেল) খন্দকার লাবনী বলেন, আত্মসমর্পণকারী ৪ ডাকাতকে সুস্থ-স্বাভাবিক জীবনে ফিরিয়ে নিতে পুলিশ ভবিষ্যতে তাদের সব রকম সহায়তা দেবে।

 

এইবেলাডটকম/সানী/গোপাল

 
 
 
   
  Print  
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
আরও খবর

 
 
 

News Room: news@eibela.com, info.eibela@gmail.com, Editor: editor@eibela.com

a concern of Eibela Foundation

Request Mobile Site

Copyright © 2017 Eibela.Com
Developed by: coder71