রবিবার, ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০১৭
রবিবার, ১৪ই ফাল্গুন ১৪২৩
সর্বশেষ
 
 
সৈয়দপুর বিমানবন্দর এলাকায় নির্মাণ হচ্ছে ঝুকিপূর্ণ বহুতল ভবন
প্রকাশ: ০৫:১৪ am ১১-০১-২০১৭ হালনাগাদ: ০৫:১৪ am ১১-০১-২০১৭
 
 
 


নীলফামারী প্রতিনিধি : নীলফামারীর সৈয়দপুর বিমানবন্দর আঞ্চলিক বিমানবন্দরে উন্নীতকরণের কাজ চলছে অপরদিকে সিভিল এ্যাভিয়েশনের অনুমোদন ছাড়াই সৈয়দপুরের অলিগলিতে গড়ে উঠছে বহুতল ভবন।

বিমানবন্দরের ২৫ নটিকেল মাইল এলাকার মধ্যে বহুতল ভবন নির্মাণের অনুমতি না থাকলেও শুধুমাত্র পৌর কর্তৃপক্ষের নকশা অনুমোদন নিয়ে নির্মাণ কাজ চলছে বহুতল ভবনের। এ নিয়ে বিমান দুর্ঘটনায় আতংকিত বিমান কর্তৃপক্ষ।স্থানীয় বিমান কর্তৃপক্ষ জানায়, বর্ষা মৌসুমে বা আবহাওয়ার পরিবর্তন ঘটলে যাত্রী সাধারণের নিরাপত্তায় বিপদসীমার অনেক নিচে দিয়ে ৪৫ ডিগ্রী এ্যাঙ্গেলে উড়ন্ত বিমান অবতরণ করা হয় বিমানবন্দরে।

ওই সময় ঘন মেঘের কারণে বিমান পাইলট সামনের কোন উঁচু স্থাপনা বা টাওয়ার ভালোভাবে দেখতে পান না। যার ফলে পাইলট বারবার এয়ারপোর্ট টাওয়ারের কাছে জানতে চান অবতরণ বিমানের সামনে কোন বহুতল ভবন টাওয়ার বা গাছপালা আছে কিনা।থাকলে সেখানে আঘাত লেগে বিমান ক্রাশের সম্ভাবনা থাকে শতভাগ।

এ কারণে শুধুমাত্র বিমান ক্রাশের ভয়েই বিমানবন্দরের ২৫ নটিকেল মাইলের মধ্যে কোন প্রকার বহুতল ভবন বা টাওয়ার স্থাপনে অনুমতি দেওয়া হয়না। বিমান ও যাত্রীদের নিরপত্তায় ওই নির্দেশনা দেওয়া না হলেও সৈয়দপুরে অলিগলিতে নির্মাণ করা হচ্ছে বহুতল ভবন।

প্রথম শ্রেণীর পৌরসভা নীলফামারীর সৈয়দপুরে দালানকোঠা নির্মাণ হবে এটাই স্বাভাবিক। কিন্তু বিমানবন্দরের ২৫ নটিকেল মাইল এলাকা বাদ দিয়ে নির্মাণের জোর তাগিদ দেওয়া হলেও মানা হচ্ছেনা।সূত্র জানায়, সৈয়দপুর বিমানবন্দরের পূর্ব পাশে সেনাসিবাস, উত্তর ও পশ্চিম পাশে পৌর এলাকা এবং দক্ষিণ পাশে বাঙ্গালীপুর ইউনিয়ন।

বিধি অনুযায়ী ২৫ নটিকেল মাইল এলাকা বাদ দিয়ে বহুতল ভবন নির্মাণের জন্য সৈয়দপুর পৌরসভা ও ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান বরাবরে সিভিল এ্যাভিয়েশন কর্তৃপক্ষ চিঠি দিয়েছিল।ওই চিঠির জবাবে সৈয়দপুর পৌরসভার সাবেক মেয়র আখতার হোসেন বাদল ও সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান মুসা উদ্দিন বিমানবন্দরের ২৫ নটিকেল মাইলের মধ্যে বহুতল ভবন নির্মাণের নকশা পাশ করবেন না বলে প্রতিশ্রুতি দেন।

এছাড়াও যদি কোন ভবনের কারণে বিমান চলাচলে বিঘ্ন ঘটলে বা সমস্যা দেখা দেয় তাহলে ওইসব বহুতল ভবন গুড়িয়ে দেওয়ারও প্রতিশ্রুতি দেন তারা।কিন্তু কাজের কাজ কিছুই হয়নি। বর্তমান পৌর ও ইউনিয়ন পরিষদ কোন কার্যকরী ব্যবস্থা না নেওয়ায় বিমান উঠানামায় ঝুঁকি বাড়ছে।

সৈয়দপুর বিমানবন্দর ব্যবস্থাপক শাহীন আহমেদ জানান, বর্তমান সরকারের আন্তরিকতায় সৈয়দপুর বিমানবন্দরটি আঞ্চলিক বিমানবন্দরে উন্নীতের কাজ চলছে।বর্তমানে এ বিমানবন্দরে প্রতিদিন বাংলাদেশ বিমান, নভোএয়ার ও ইউএস-বাংলার বিমান চলাচল করছে। যাত্রীসেবাও দেওয়া হচ্ছে শতভাগ।কিন্তু বিমানবন্দরের ২৫ নটিকেল মাইলের মধ্যে উঁচু ভবন থাকায় আতংকে রয়েছে বিমানের পাইলটরা।

বিমান অবতরণে আতঙ্কিত ভবনগুলোর ব্যাপারে ব্যবস্থা নিতে পৌর কর্তৃপক্ষ ও সিভিল এ্যাভিয়েশন কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি দেওয়া উচিত বলে তিনি মন্তব্য করেন।

এইবেলাডটকম/মোমেন/এফএআর

 
 
 
   
  Print  
 
 
 
 
 
 
 
Migration
 
আরও খবর

 
 
 

News Room: news@eibela.com, info.eibela@gmail.com, Editor: editor@eibela.com

a concern of Eibela Foundation

Request Mobile Site

Copyright © 2017 Eibela.Com
Developed by: coder71