শনিবার, ২৫ মার্চ ২০১৭
শনিবার, ১১ই চৈত্র ১৪২৩
সর্বশেষ
 
 
সংখ্যালঘু নির্যাতনের প্রতিবাদে সেক্যুলার বাংলাদেশ মুভমেন্ট এর প্রতিবাদ সভা
প্রকাশ: ০৮:৫৪ am ০৬-১১-২০১৬ হালনাগাদ: ১০:২৬ am ০৬-১১-২০১৬
 
 
 


লন্ডন প্রতিনিধি: ধারাবাহিক ভাবে বাংলাদেশে সংখ্যালঘু নির্যাতনের ঘটনার প্রতিবাদে  সেক্যুলার বাংলাদেশ মুভমেন্ট ইউকে গত বৃহস্পতিবার ৩ নভেম্বর বিকেলে ইষ্টলন্ডনের বো এলাকায় এক প্রতিবাদ সভা করেছে।

পূর্ব  লন্ডনের তাঁদের কার্য্যালয়ে সংগঠনের আহ্বায়ক পুষ্পিতা গুপ্তের সভাপতিত্বে সভায় লিখিত প্রতিবাদলিপি পাঠ করেন সংগঠনের সদস্য মুসলে জাহিন এনামুল।

লিখিত বক্তব্যে বলা হয়, বাংলাদেশে  হবিগঞ্জের মাধবপুরে দুই মন্দিরে ভাংচুরের মধ্যে দিয়ে শুরু হওয়া সেই নির্যাতন উৎসব ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নাসিরনগরে ২০০ পরিবারের উপর দিয়ে যে তান্ডব বয়ে গেছে দেশবাসী সংবাদ মাধ্যম ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে অবগত আছেন, ব্রাহ্মণবাড়িয়ার ঘটনার সাথে সাথেই গোপালগঞ্জে সনাতন ধর্মাবলম্বী নারীদের উত্যক্ত করার প্রতিবাদ  করায় সেখানেও মন্দির, মূর্তি ভাংচুর সহ নির্যাতন চালানো হয়েছে।

আজকের সংবাদ মাধ্যমের খবর অনুযায়ী, বগুড়া যশোর ও ফরিদপুরে প্রতিমা ভাংচুরের ঘটনা ঘটেছে।


ব্রাহ্মণবাড়িয়ার ঘটনা নিয়ে,সরকারের আইনমন্ত্রী, স্থানীয় এমপি এবং মৎস্য ও প্রাণী সম্পদ মন্ত্রণালয়ের মাননীয় মন্ত্রী মোহাম্মমদ ছায়েদুল হক, ও স্বয়ং স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর বক্তব্যের মাধ্যমে প্রকৃত ঘটনা ধামাচাপা দেয়ার একটা চেষ্টাই পরিলক্ষিত হয়।

সেক্যুলার মুভমেন্টের পক্ষ থেকে সরকারের দায়িত্বশীল ব্যক্তিদের দায়িত্বহীন বক্তব্যের তীব্র নিন্দা জানাচ্ছি এবং দ্রুত অপরাধীদের বিচারের মুখোমুখি করে সাজা নিশ্চিত করার দাবি জানাচ্ছি।


আমরা বিশ্বাস করি, সংখ্যালঘু নির্যাতন প্রতিরোধ শুধুমাত্র রাষ্ট্রের বা সরকারের একার দায় নয়।

আপনার, আমার, আমাদের সবার দায়িত্ব। দায়বদ্ধতা এড়িয়ে যাওয়ার সুযোগ নেই আমাদের। দেশের প্রতিটা মানুষের নিজ নিজ ধর্ম পালনের অধিকার যেমন আছে, পালন না করার ও অধিকার আছে। তবে ধর্ম অবমাননার অধিকার নেই নিশ্চয়।

অবমাননাকারীর ও বিচার হওয়া জরুরী। কিন্তু সেটা কোন ভাবেই ধর্মীয় উন্মাদনা ও উন্মত্ততা দিয়ে নয়।

ধর্মীয় উন্মত্ততা ও উন্মাদনা প্রতিরোধে এখন সবচেয়ে বেশী জরুরী সামাজিক প্রতিরোধ। সেই প্রতিরোধের কাজটাই আমাদের সম্মিলিত ভাবে করতে হবে। জনসম্পৃক্ততা ছাড়া শুধুমাত্র প্রশাসন কিংবা সরকারের পক্ষে সম্ভব নয় এদের প্রতিরোধ করা।


প্রতিবাদ সভায় অন্যান্যদের মাঝে  বক্তব্য রাখেন  রানা মেহের, সুশান্ত দাশ গুপ্ত, অজয় সাহা, জুয়েল রাজ, অসীম চক্রবর্তী, শেখ ছায়দুল হক নয়ন, অজিত লাল দাস,  কবি উদয় শংকর দুর্জয়, তানভীর আহমেদ, সুমন নাথ, পীযুষ কুরী  প্রমুখ।

 

এইবেলাডটকম/পিসি 

 
 
 
   
  Print  
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
আরও খবর

 
 
 

News Room: news@eibela.com, info.eibela@gmail.com, Editor: editor@eibela.com

a concern of Eibela Foundation

Request Mobile Site

Copyright © 2017 Eibela.Com
Developed by: coder71