বৃহস্পতিবার, ৩০ মার্চ ২০১৭
বৃহঃস্পতিবার, ১৬ই চৈত্র ১৪২৩
সর্বশেষ
 
 
মূলার পুষ্টিগুণ ও স্বাস্থ্য উপকারিতা
প্রকাশ: ১১:০৭ pm ২৮-১২-২০১৬ হালনাগাদ: ১১:০৭ pm ২৮-১২-২০১৬
 
 
 


দেহযাত্রা ::  মূলার নাম শুনলে অনেকেই নাক কুঁচকে ফেলেন। কিন্তু এর পুষ্টিগুণ ও স্বাস্থ্য উপকারিতা অনেক সবজির চেয়েই বেশি। মূলা কাঁচা অথবা রান্না করে খাওয়া যায়। পুষ্টি সমৃদ্ধ এই মুলজ সবজিটির অসাধারণ কিছু স্বাস্থ্য উপকারিতার কথা জেনে নিন: 

১। ক্যান্সারের ঝুঁকি কমায়: মূলায় ফাইটোকেমিক্যাল ও এন্থোসায়ানিন থাকে যা অ্যান্টি-কার্সিনোজেনিক গুনাগুণ সম্পন্ন। এর পাশাপাশি মূলায় ভিটামিন সি থাকে যা একটি শক্তিশালী অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট। কোষের ভেতরের ডিএনএকে ফ্রি র‌্যাডিকেলের ক্ষতির হাত থেকে রক্ষা করে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট, এভাবেই ক্যান্সার প্রতিরোধে সাহায্য করে মূলা। প্ল্যান্ট ফুডস ফর হিউম্যান নিউট্রিশন নামক সাময়িকীতে প্রকাশিত গবেষণা প্রতিবেদনে শক্তিশালী প্রমাণ দেয়া হয়েছে যে, মূলার নির্যাস বিভিন্ন ধরনের আইসোথায়োসায়ানেটের উপস্থিতিতে অ্যাপোপটোটিক উপায়ে কোষের মৃত্যুকে উৎসাহিত করে। 

২। রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণ করে: মূলায় অ্যান্টি-হাইপারটেনসিভ উপাদান থাকে যা রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণ করে। মূলা পটাসিয়ামে সমৃদ্ধ বলে শরীরের সোডিয়াম-পটাসিয়ামের ভারসাম্য রক্ষা করার মাধ্যমে রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে রাখে। নিউট্রিশন রিসার্চ এন্ড প্র্যাকটিস সাময়িকীতে প্রকাশিত গবেষণা প্রতিবেদনে বলা হয় যে, মূলার পাতা রক্তচাপ কমায় ২১৪ মিলিমিটার মার্কারি থেকে ১৬৬ মিলিমিটার মার্কারি পর্যন্ত। 

৩। ডায়াবেটিস রোগীদের জন্য ভালো: গ্লুকোজের শোষণের জন্য প্রয়োজনীয় ইনসুলিন নিঃসৃত করে অগ্নাশয়। ডায়াবেটিকে আক্রান্তদের শরীরে ইনসুলিন উৎপন্ন হয়না বা হলেও ঠিকমত কাজ করেনা। এজন্যই তারা চিনি ও শ্বেতসার জাতীয় খাবার খেতে পারেন না। মূলায় গ্লাইসেমিক ইনডেক্স কম এবং ফাইবারের পরিমাণ বেশি থাকে বলে রক্তের চিনির মাত্রা বৃদ্ধি করেনা বলে ডায়াবেটিক রোগীদের জন্য মূলা খাওয়া ভালো।

৪। ঠান্ডা ও কাশি দূর করে: আপনার যদি ঘন ঘন ঠান্ডা বা কাশি হওয়ার প্রবণতা থাকে তাহলে আপনার খাদ্যতালিকায় রাখতে পারেন মূলা। এই সবজিটির অ্যান্টি-কঞ্জেস্টিভ গুণ আছে বলে গলার ভেতরের মিউকাসের গঠনকে পরিষ্কার হতে  সাহায্য করে। এছাড়াও মূলা ইমিউনিটির উন্নতিতে সাহায্য করে এবং সংক্রমণকে দূরে রাখে।

৫। জন্ডিস থেকে আরোগ্য লাভে সাহায্য করে: শরীরের বিষাক্ত পদার্থ দূর করতে মূলা শক্তিশালী ভূমিকা রাখে। মূলা জন্ডিসের রোগীদের জন্য অনেক উপকারী কারণ এটি রক্তের বিলিরুবিনের মাত্রা নিয়ন্ত্রণে এবং শরীরে অক্সিজেনের সরবরাহ বৃদ্ধি করতে  সাহায্য করে। এর ফলে জন্ডিসের কারণে সৃষ্ট লাল রক্ত কণিকার ভাঙ্গনকে প্রতিহত করতে সাহায্য করে মূলা।  

৬। কোষ্ঠকাঠিন্য এর বিরুদ্ধে যুদ্ধ করে: মূলায় উচ্চমাত্রার ফাইবার থাকে বলে কোলন পরিষ্কার করতে সাহায্য করে। এছাড়াও আন্ত্রিক রস ও পিত্তরস এর নিঃসরণে সাহায্য করে মূলা, যা আপনার পরিপাক তন্ত্রের জন্য উপকারী। তাই যারা কোষ্ঠকাঠিন্যের  সমস্যায় ভোগছেন তাদের জন্য মূলা খাওয়া উপকারী। 

৭। ওজন কমতে সাহায্য করে: মূলায় ক্যালরির পরিমাণ খুবই কম থাকে এবং এতে তৃপ্তিদায়ক ফাইবার থাকে। ১০০ গ্রাম কাঁচা মূলায় ১৬ ক্যালরি থাকে, তাই ওজন কমাতে চান যারা তাদের ডায়েটের অংশ হতে পারে মূলা। 

৮। অ্যাজমা রোগীদের জন্য ভালো: মূলায় অ্যান্টি-কঞ্জেস্টিভ উপাদান (কোন কিছু জমে থাকতে বাঁধা দেয়) থাকে বলে অ্যাজমা রোগীদের জন্য অনেক উপকারী। এছাড়াও এটি শ্বসনতন্ত্রের অ্যালার্জির বিরুদ্ধেও যুদ্ধ করে এবং সংক্রমণ হওয়া থেকে রক্ষা করে। 

৯। তরুণ থাকতে সাহায্য করে: ভিটামিন সি এবং অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট থাকে বলে মূলা আপনার ত্বককে ফ্রি র‌্যাডিকেলের ক্ষতির হাত থেকে রক্ষা করে। কাঁচা মূলা থেতলে নিয়ে ত্বকে লাগাতে পারেন, কারণ এতে পরিষ্কারক উপাদান আছে।

১০। কিডনিকে স্বাস্থ্যবান রাখে: মূলায় মূত্রবর্ধক উপাদান আছে বলে এটি কিডনির স্বাস্থ্যের জন্য অত্যন্ত ভালো। শরীর থেকে বিষাক্ত পদার্থ বের করে দেয় মূলা এবং প্রাকৃতিক পরিষ্কারক হিসেবে কাজ করে।

 

এইবেলাডটকম/নীল

 
 
 
   
  Print  
 
 
 
 
 
 
 
 
আরও খবর

 
 
 

News Room: news@eibela.com, info.eibela@gmail.com, Editor: editor@eibela.com

a concern of Eibela Foundation

Request Mobile Site

Copyright © 2017 Eibela.Com
Developed by: coder71