বৃহস্পতিবার, ১৯ জানুয়ারি ২০১৭
বৃহঃস্পতিবার, ৬ই মাঘ ১৪২৩
সর্বশেষ
 
 
মার্কেটেই ব্যবসা করতে চান ক্ষতিগ্রস্ত ব্যবসায়ীরা
প্রকাশ: ০৩:৫৮ pm ০৪-০১-২০১৭ হালনাগাদ: ০৩:৫৮ pm ০৪-০১-২০১৭
 
 
 


গুলশান : রাজধানীর গুলশান ১ এর ডিসিসি মার্কেটের ব্যবসায়ীরা যেন মার্কেট ছেড়ে চলে না যান সেজন্য মাইকিং করে ব্যবসায়ীদের দোকানেই থাকতে বলা হচ্ছে।

মার্কেটটি আবারও চালুর জন্য এখন দোকান পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতার কাজ করা হচ্ছে।বুধবার দুপুরে মার্কেট কর্তৃপক্ষ এ মাইকিং করে। শুক্রবার মার্কেট খুলে দেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন ডিসিসি পাকা মার্কেটের সভাপতি এস এম তালাল রেজবী। এরই মধ্যে অনেক ব্যবসায়ী দোকান পরিষ্কার করা শুরু করেছেন। অনেকে দোকান খুলে বসেছেন।

তালাল রেজবী বলেন, আমরা শুক্রবার মার্কেট খুলে দিচ্ছি। এজন্য বুধ ও বৃহস্পতিবার পরিচ্ছন্নতার কাজ চলবে। এরই মধ্যে সিটি করপোরেশনের পরিচ্ছন্নতা কর্মী, ব্যবসায়ী ও কর্মচারীরও পরিচ্ছন্নতার কাজ করছেন।

প্রসঙ্গত, সোমবার রাত ২টার দিকে ডিসিসির দুটি মার্কেটে আগুন লাগে। আগুন লাগার ১৫ মিনিটের মধ্যে কাঁচা মার্কেটটি ধসে পড়ে। পরে আগুন পাকা মার্কেটে ছড়িয়ে পড়ে। ১৬ ঘণ্টা পর মঙ্গলবার সন্ধ্যা ৬টার দিকে আগুন নিয়ন্ত্রণে আসার ঘোষণা দেন ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের পরিচালক (অপারেশন) মেজর শাকিল নেওয়াজ।

তবে আগুন এখনও পুরোপুরি নেভেনি। পুরোপুরি নেভাতে আরো সময় লাগবে বলে জানিয়েছে ফায়ার সার্ভিস। এরই মধ্যে বুধবার সকাল থেকে কাঁচা বাজারে ধ্বংসস্তূপ সরানোর কাজ শুরু হয়েছে।

ডিসিসি কাঁচা ও পাকা মার্কেটে ৬ শতাধিক দোকান ছিল। আগুনে প্রায় আড়াইশ দোকান পুরোপুরি পুড়ে গেছে এবং বাকিগুলো নানাভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে বলে জানান ক্ষতিগ্রস্ত ব্যবসায়ীরা। এদিকে, সাবেক স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী মহিউদ্দন খান আলমগীর বলেন, ফার্মাস ব্যাংক থেকে আপনাদের সহজ শর্তে ঋণ দেওয়া হবে। গুলশানে ব্যাংকের দুটি শাখায় আপনার যোগাযোগ করুন, সহযোগিতা করা হবে সেখানে থেকে।

এইবেলাডটকম/এফএআর

 
 
 
   
  Print  
 
 
 
 
 
 
 
Migration
 
আরও খবর

 
 
 

News Room: news@eibela.com, info.eibela@gmail.com, Editor: editor@eibela.com

a concern of Eibela Foundation

Request Mobile Site

Copyright © 2017 Eibela.Com
Developed by: coder71