বৃহস্পতিবার, ১৭ আগস্ট ২০১৭
বৃহঃস্পতিবার, ২রা ভাদ্র ১৪২৪
সর্বশেষ
 
 
বাজেট বাস্তবায়নযোগ্য : অর্থমন্ত্রী
প্রকাশ: ১২:৩১ am ০৬-০৬-২০১৫ হালনাগাদ: ১২:৩১ am ০৬-০৬-২০১৫
 
 
 


নিজস্ব প্রতিবেদক :
বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচি (এডিবি) সম্পন্ন ও রাজস্ব আয় সংগ্রহে চ্যালেঞ্জ থাকলেও আগামী অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেট বাস্তবায়নযোগ্য বলে মনে করছেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আব্দুল মুহিত।
তিনি বলেন,‘বাস্তবায়ন গতি বাড়াতে নানামূখী সংস্কার কর্মসূচি গ্রহণ করায়, আমাদের যে সক্ষমতা তৈরি হয়েছে, তাতে আশা করি প্রস্তাবিত বাজেটের এডিবি বাস্তবায়ন করা যাবে। গত ৫ বছরে আমরা ৯৫ শতাংশ এডিবি বাস্তবায়ন করেছি। চলতি অর্থবছরে তা ৯৬ শতাংশে দাঁড়িয়েছে।এর পাশাপাশি ধীরগতির প্রকল্প বাস্তবায়ন ত্বরান্বিত করার ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। এতে আশা করি এডিবি বাস্তবায়ন সম্ভব।’
প্রস্তাবিত বাজেটে রাজস্ব আয়ের লক্ষ্যমাত্রা বেশি থাকলেও, এটিও অর্জন সম্ভব বলে তিনি উল্লেখ করেন। বলেন, এক বছরে রাজস্ব আয়ের ক্ষেত্রে ৩০ শতাংশ প্রবৃদ্ধি অর্জন করার অভিজ্ঞতা আমাদের আছে। এনবিআরের জনবল বেড়েছে, পাশাপাশি তাদের সক্ষমতাও বেড়েছে। এতে আশা করি আগামী অর্থবছরে লক্ষ্যমাত্রা অনুযায়ী রাজস্ব আয় সংগ্রহ করা যাবে।
শুক্রবার বিকেলে ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে ২০১৫-১৬ অর্থবছরের বাজেট-পরবর্তী সংবাদ সম্মেলনে মন্ত্রী এসব কথা বলেন।
সংবাদ সম্মেলনে অর্থমন্ত্রীর সাথে শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু, কৃষিমন্ত্রী বেগম মতিয়া চৌধুরী, তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু, পরিকল্পনা মন্ত্রী আ হ ম মোস্তফা কামাল, বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর ড. আতিউর রহমান, অর্থসচিব মাহবুব হোসেন, জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) চেয়ারম্যান মো. নজিবুর রহমান, ইআরডি সচিব মেজবাহ উদ্দিন, পরিকল্পনা সচিব শফিকুল আজম উপস্থিত ছিলেন। তারা বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দিয়ে অর্থমন্ত্রীকে সহায়তা করেন।
অর্থমন্ত্রী গতকাল তার বাজেট বক্তব্যে ৬ শতাংশের বৃত্ত ভেঙ্গে প্রবৃদ্ধির উচ্চতর সোপানে পোঁছানোর জন্য রাজনৈতিক স্থিতিশীলতার প্রয়োজন বলে উল্লেখ করেছিলেন। এ প্রসঙ্গে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন,‘কখনও কখনও অর্থনীতির ভিত্তি রাজনীতির ভিত্তিকে পরিচালিত করে। আমাদের অর্থনীতি প্রায় সেই জায়গায় পৌঁছে গেছে। গত জানুয়ারিতে এর প্রমাণ আপনারা দেখেছেন। এই ধ্বংসাত্বক রাজনীতি বেশিদিন সহ্য করতে হবে না।’ তিনি বলেন, এই বিশ্বাস থেকে আমি প্রবৃদ্ধির উচ্চতর সোপানে পোঁছানোর প্রত্যাশা করছি।
অর্থমন্ত্রী বলেন,চিনি আমদানির ওপর থেকে আমদানি শুল্ক প্রত্যাহরের ঘোষণা দেন। বলেন, চিনি আমদানিতে কোন শুল্ক আরোপ করা হবে না।
প্রস্তাবিত বাজেটে সিটি করপোরেশন, পৌরসভা ও গ্রামীণ এলাকায় সবার জন্য একইহারে ৪ হাজার টাকা ন্যুনতম করারোপের প্রস্তাব করা হয়েছে।এক্ষেত্রে শহরের করদাতাদের ১ হাজার টাকা এবং গ্রামীন করদাতাদের ৩ হাজার টাকা বাড়ানোর প্রস্তাব রয়েছে।
এ বিষয়ে অর্থমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করলে তিনি গ্রামীণ করদাতাদের ন্যুনতম কর কমানোর ইঙ্গিত দেন। বলেন, এই কর কাঠামো আরো স্পষ্ট করা হবে। তখন সিটি করপোরেশন আলাদা এবং বাকীগুলোতে একই করহার থাকবে।
এ বিষয়ে এনবিআর চেয়ারম্যান নজিবুর রহমান বলেন, ন্যুনতম কর কাঠামো একটি জটিল বিষয়। এই কাঠামোকে আরো সহজ করতে এ ধরনে প্রস্তাবনা দেয়া হয়েছে।
মোবাইল সেবার ক্ষেত্রে ৫ শতাংশ সম্পূরক শুল্ক আরোপের বিষয়ে মুহিত বলেন, মোবাইলের সিম প্রতিস্থাপনে আমরা কর কমানোর প্রস্তাব করেছি। তবে মোবাইল সেবার ক্ষেত্রে শুল্ক কিছুটা বাড়ানো হয়েছে। পৃথিবীর সব দেশেই এটা আছে। তিনি বলেন, আমাদের যদি অগ্রগতির পথে চলতে হয়, প্রবৃদ্ধি ৭ শতাংশে যেতে হয়, তাহলে এনবিআরকে নতুন উদ্যোগ নিতে হবে। এনবিআর সেটাই নিয়েছে।
অর্থমন্ত্রী চিনি আমদানির ওপর প্রস্তাবিত শুল্ক তুলে নেয়ার ঘোষণা দেন।
এক প্রশ্নের উত্তরে বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর ড. আতিউর রহমান বলেন, আগামী অর্থবছরে ঘাটতি বাজেট মেটাতে ব্যাংকিং খাত থেকে ৩৮ হাজার ৫২৩ কোটি টাকা ঋণ নেয়ার যে লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে, এতে বেসরকারী খাতের বিনিয়োগে তারল্যর সৃষ্টি হবে না। কারণ বর্তমানে ব্যাংকিং খাতে যথেষ্ট তারল্য আছে। এছাড়া বিদেশ থেকে স্বল্প সুদে দেশীয় উদ্যোক্তারা ঋণ নিতে পারছেন। তাই সরকারের এই ব্যাংক ঋণের কারণে বেসরকারী খাতের বিনিয়োগে অর্থের অভাব হবে না।
আগামী ২ মাসের মধ্যে জ্বালানী তেলের মূল্য সমন্বয়ের কাজ শুরু করা হবে বলে জানান অর্থমন্ত্রী।
গতকাল বৃহস্পতিবার ২০১৫-১৬ অর্থবছরের যে বাজেট অর্থমন্ত্রী ঘোষণা করেছেন, তাতে আগামী অর্থবছরের জন্য ব্যয় প্রস্তাব করা হয়েছে ২ লাখ ৯৫ হাজার ১০০ কোটি টাকা। এর বিপরীতে রাজস্ব আদায়ের পরিকল্পনা রয়েছে ২ লাখ ৮ হাজার ৪৪৩ কোটি টাকার।
এইবেলা ডট কম/এইচ আর
 
 
 
   
  Print  
 
 
 
 
 
 
 
Mr. Helal
 
আরও খবর

 
 
 
 
 

সম্পাদক: সুকৃতি কুমার মন্ডল

Editor: ‍Sukriti Kumar Mondal

সম্পাদকের সাথে যোগাযোগ করুন # sukritieibela@gmail.com

খবর প্রেরণ করুন # info.eibela@gmail.com

a concern of Eibela Foundation

Request Mobile Site

   বিজ্ঞাপনের জন্য যোগাযোগ:

 E-mail: sukritieibela@gmail.com

  মোবাইল: +8801711 98 15 52 

            +8801517-29 00 01

 

 

Copyright © 2017 Eibela.Com
Developed by: coder71