শনিবার, ২৮ নভেম্বর ২০২০
শনিবার, ১৪ই অগ্রহায়ণ ১৪২৭
সর্বশেষ
 
 
ফুলবাড়ী উপজেলার ভাঙ্গামোড়ে ভাঙ্গা রাস্তায় ভোগান্তি জনজীবনে
প্রকাশ: ১১:৩৩ pm ০৭-১০-২০২০ হালনাগাদ: ১১:৩৩ pm ০৭-১০-২০২০
 
কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি
 
 
 
 


কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ী উপজেলার ভাঙ্গামোড় ইউনিয়নের ভাঙ্গামোড় হতে রাঙ্গামাটি পর্যন্ত প্রায় তিন কিলোমিটার দীর্ঘ কাঁচা রাস্তাটির বেহালদশা।প্রতিবছর বর্ষায় চরম ভোগান্তি পোহাতে হয় এ রাস্তা দিয়ে যাতায়তকারীদের। সবশেষ বন্যায় পানিতে তলিয়ে গোটা রাস্তাটিতে সৃষ্টি হয়েছে খানা-খন্দ, প্রায় ২৫ মিটার অংশ স্রোতের তোড়ে ভেঙ্গে যাওয়ায় বর্তমানে রাস্তাটি যানবাহন চলাচলের অযোগ্য হয়ে গেছে। রাস্তাটি কাঁচা হলেও অত্র এলাকার মানুষের জীবন জীবিকায় যথেষ্ট গুরুত্ব বহন করে।রাস্তাটির আশপাশের গ্রামগুলির ১৫ হাজারেরও বেশি মানুষকে চিকিৎসা, শিক্ষা, ব্যবসা-বাণিজ্য, কৃষি, পরিবহন ও যোগাযোগের ক্ষেত্রে পুরোপুরি নির্ভর করতে হয় এ রাস্তার উপড়।

চলাচলে চরম ভোগান্তি নিয়ে এ রাস্তা দিয়ে যাতায়ত করতে হয়- রাঙ্গামাটি  উচ্চ বিদ্যালয়, রাঙ্গামাটি সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়, রাঙ্গামাটি কাছিমুল উলুম হাফেজিয়া  মাদ্রাসা, কাগজীপাড়া সিদ্দিকিয়া নুরানি হাফেজিয়া কওমি মাদ্রাসা, সাইফুর রহমান সরকারী মহাবিদ্যালয় সহ বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ছাত্র-ছাত্রীদের। তাছাড়াও রাঙ্গামাটিতে অবস্থিত আবাসনে (গুচ্ছ গ্রাম) এবং রাঙ্গামাটি কমিউনিটি ক্লিনিকে সেবা নিতে আসা গর্ভবতী মা ও শিশুদের এ রাস্তাদিয়ে যাতায়ত করতে হয় ।রাস্তার বেহালদশায় সকল প্রকার যানবাহন চলাচলের অযোগ্য হওয়ায় বর্তমানে তাদেরকে পায়ে হেটেই ক্লিনিকে যেতে হয়। গুরুতর অসুস্থ্য রোগীকে হাসপাতালে নিতে ভোগান্তিতে পড়তে হয় অনেককেই। উৎপাদিত কৃষি পণ্য বিক্রয় ও দৈনন্দিন চাহিদা পূরণে অত্র এলাকাবাসীকে এ রাস্তা দিয়েই পার্শ্ববর্তী খোলার হাট বাজার,খোঁচাবাড়ী বাজার, নেওয়াশী বাজার, পাখির হাট বাজার, রাঙ্গামাটি বাজার, খড়িবাড়ি বাজার ও উপজেলা সদরে যেতে হয়।

এলাকাবাসী, সবুর সরদার, দেলোয়ার হোসেন, তৈয়ব আলী, বেলাল হোসেন, আজিজুল হক, আমিনুল ইসলাম বলেন, আমরা প্রতি বছর বর্ষায় এ রাস্তাটির কারণে চরম ভোগান্তির শিকার হই।বর্তমানে রাস্তাটি চলাচলের একেবারে অযোগ্য হয়ে পড়েছে। থমকে গেছে আমাদের স্বাভাবিক জীবন-যাপন।
এ সময় ১৫ হাজারেরও বেশি মানুষের চলাচলের একমাত্র  রাস্তাটির দ্রুত মেরামতেরও দাবি জানান তারা।

রাস্তাটির এমন বেহালদশার সত্যতা স্বীকার করে ভাঙ্গামোড় ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান লুৎফর রহমান বাবু  বলেন-আমি  ব্যক্তিগত অর্থায়নে এলাকার জনগণকে সাথে নিয়ে রাস্তাটির ভাঙ্গা অংশে বাঁশের সাঁকো দিয়েছি। পুরো রাস্তাটি  সংস্কারে যথাযথ কর্তৃপক্ষের সুদৃষ্টি কামনা করছি।

নি এম/রতি

 
 
 
   
  Print  
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
আরও খবর

 
 
 

 

E-mail: info.eibela@gmail.com

a concern of Eibela Ltd.

Request Mobile Site

Copyright © 2020 Eibela.Com
Developed by: coder71