সোমবার, ১০ আগস্ট ২০২০
সোমবার, ২৬শে শ্রাবণ ১৪২৭
সর্বশেষ
 
 
ফরিদপুরে সন্ত্রাসী হামলার শিকার সুরেশ পালের পরিবার !
প্রকাশ: ০৪:১১ pm ১৬-০৪-২০২০ হালনাগাদ: ০৪:১১ pm ১৬-০৪-২০২০
 
ফরিদপুর প্রতিনিধি
 
 
 
 


ফরিদপুরে সন্ত্রাসী হামলার শিকার সংখ্যালঘু হিন্দু পরিবার নিরাপত্তাহীনতায়! গুরুতর আহত ৪ জনের মধ্যে ২ জনকে ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে!

প্রসঙ্গত, বাছুরে ক্ষেতের আখ খাওয়ায় ফরিদপুরে একটি সংখ্যালঘু পরিবারে হামলা চালিয়ে কুপিয়ে ও পিটিয়ে ওই পরিবারের চারজনকে আহত করেছে সন্ত্রাসীরা। আহত সুরেশ পাল (৪৫) ও তার ছোট ভাইয়ের স্ত্রী সুস্মিতা পাল (২৫) কে ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

গত রবিবার (১২ এপ্রিল) ফরিদপুর সদর উপজেলার কৃষ্ণনগর ইউনিয়নের মল্লিকপুরের পালপাড়ায় এ ঘটনা ঘটেছে। এরপর থেকে থানায় মামলা করার জন্য ওই পরিবারকে অনবরত হুমকি দেয়া হচ্ছে।

তবে নির্যাতিত ওই পরিবারের পক্ষ হতে ঘটনার পরপরই কোতয়ালী থানার ওসি মোরশেদ আলমকে ফোন করে বিষয়টি জানানো হয়। এরপর ওসির নির্দেশে লিখিত অভিযোগ দেয়া হয় থানায়। তবে বুধবার দুপুর পর্যন্ত এ ঘটনায় থানায় মামলা না হওয়ায় শঙ্কিত পরিবারটি।

আহত সুরেশ পালের ভাই জিতেন পাল বলেন, রবিবার বিকালে তাদের বাছুর সলেমান বেপারীর আখ খেতের কয়েকটি পাতা খায়। এনিয়ে সলেমান বেপারী তার ভাই জগদীশের উপর চড়াও হয়ে শাষাতে থাকে। এরপর মোঃ মিজান বেপারী (৩৮), মোঃ রানা বেপারী (৩৫), মোঃ হৃদয় বেপারী (৩৩) ও মোঃ সুজায়েত (৩০) সহ আরো কয়েকজন সন্ধার পর দলবল সহকারে এসে তারা দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে হামলা চালায়। সন্ত্রাসীরা সুরেশ পালের মাথায় রামদা দিয়ে কোপ দিলে তিনি হাত দিয়ে সেটি ঠেকান। এসময় তার কপালে কোপ লাগে। আর সুস্মিতা পালের পায়ে হকিষ্টিক দিয়ে পিটিয়ে গুড়িয়ে দেয়। সুরেশ পালের স্ত্রী সবিতা পাল (৪০) ও ছেলে সমীর পাল (১৮) কে পিটিয়ে আহত করে।

বিকেল হতে সন্ধার পর্যন্ত চার দফায় সন্ত্রাসীরা চড়াও হয় সুরেশ পালের পরিবারের সদস্যদের প্রতি। অনুনয়-বিনয় এমনকি আখের ক্ষতিপুরণ দিতে চাইলেও তারা নিবৃত হয়নি। এখন তাদেরকে থানায় মামলা করলে দেশ ছাড়া করার হুমকি দেয়া হচ্ছে।

জিতেন পাল বলেন, তাদেরকে থানায় মামলা করলে দেশ ছাড়া করার হুমকি দেয়া হচ্ছে। ‘এখনো ইন্ডিয়া যাসনি?’ বলে আমাদের ভীতি দেখানো হচ্ছে। আমরা চরম নিরাপত্তাহীনতায় রয়েছি।

এ ব্যাপারে কোতয়ালী থানার ওসি মোরশেদ আলম বলেন, লিখিত অভিযোগ একজন পুলিশ কর্মকর্তাকে দিয়ে বিষয়টি তদন্ত করা হয়েছে। এব্যাপারে থানায় শিঘ্রই একটি মামলা রুজু করা হবে।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, হামলাকারীরা এলাকায় প্রভাবশালী। তারা বিচার শালিসে লিড দেয়। ইতিপূর্বে একটি শালিসে তাদের অন্যায় সিদ্ধান্তের ব্যাপারে মতভিন্নতা প্রকাশ করায় তারা পাল বাড়ির ছেলেদের উপর ক্ষিপ্ত হয়।

নি এম/

 
 
 
   
  Print  
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
আরও খবর

 
 
 

 

E-mail: info.eibela@gmail.com

a concern of Eibela Ltd.

Request Mobile Site

Copyright © 2020 Eibela.Com
Developed by: coder71