রবিবার, ১৯ নভেম্বর ২০১৭
রবিবার, ৫ই অগ্রহায়ণ ১৪২৪
 
 
খ্রিস্টান দম্পতিকে ৫ বছর ইসলামী জীবন-যাপনে বাধ্য করা হয়
প্রকাশ: ০৮:২৫ am ১৪-১০-২০১৭ হালনাগাদ: ০৮:২৬ am ১৪-১০-২০১৭
 
এইবেলা ডেস্ক
 
 
 
 


আফগানিস্তানে তালেবানদের হাতে জিম্মি উত্তর আমেরিকার পাঁচ সদস্যের একটি পরিবারকে উদ্ধার করা হয়। ২০১২ সালে আফগানিস্তানে ভ্রমণের সময় কানাডার নাগরিক জোশুয়া বয়েল এবং তার স্ত্রী যুক্তরাষ্ট্রের নাগরিক কেইটলান কোলম্যানকে জিম্মি করে তালেবানসংশ্লিষ্ট হাক্কানি নেটওয়ার্ক। এই পরিবারকে জোরপূর্বক ইসলাম গ্রহণ করতে বাধ্য করা হয়। ৫ বছর যাবৎ তারা ইসলামী জীবন যাপন করতে বাধ্য করা হয় না হলে তাদের হত্যা করা হতে বলে অপহৃত দম্পতি জানান।

জিম্মি থাকা অবস্থাতেই তাদের তিন সন্তানের জন্ম হয় বলে জানিয়েছে বিবিসি। মার্কিন গোয়েন্দা সংস্থার কাছ থেকে তথ্য পেয়ে আফগান সীমান্তের কাছ থেকে ওই পরিবারকে উদ্ধার করা হয়। মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেছেন, এই ঘটনা পাকিস্তান-যুক্তরাষ্ট্র সম্পর্কের জন্য ‘ইতিবাচক’।

জিম্মি করার পর জোশুয়া ও কোলম্যান দম্পতির একটি ভিডিও টেপ প্রকাশ করে হাক্কানি নেটওয়ার্ক। সেখানে এই দুই উত্তর আমেরিকান নাগরিকের বদলে আফগানিস্তানে বন্দি তাদের তিন সদস্যের মুক্তি দাবি করা হয়। ডিসেম্বরে প্রকাশিত সর্বশেষ ভিডিওতে এই দম্পতির সঙ্গে তাদের দুই ছেলেকেও দেখানো হয়।

বিবিসি বলছে, অপহরণের সময় গর্ভবতী কোলম্যান শেষ ভিডিওতে ‘ভয়াবহ দুঃস্বপ্নের’ হাত থেকে মুক্তি চেয়েছিলেন। জোশুয়া-কোলম্যান পরিবারকে উদ্ধারের পর এক টরেন্টো স্টার নিউজপেপার লিন্ডা বয়েলের একটি ভিডিও প্রকাশ করে।

ভিডিওতে লিন্ডা জানান, তিনি এবং তার স্বামী পাঁচ বছর পর তাদের সন্তান জোশুয়ার সঙ্গে কথা বলতে পেরেছেন।  মার্কিন কর্মকর্তারা পাঁচ সদস্যের পরিবারটিকে যুক্তরাষ্ট্রে নিয়ে যেতে চাইলেও জোশুয়া তাতে রাজি হননি বলে জানিয়েছে রয়টার্স।

অপরহরণের আগে জোশুয়া এক নারীকে বিয়ে করেছিলেন। গুয়ানতানামো কারাগারে বন্দি ওমর খাদরের বোন ওই নারী উগ্র ইসলামী ধ্যানধারণা পোষণ করতেন বলে ধারণা করা হয়।

এই কারণে যুক্তরাষ্ট্রে বিচারের মুখোমুখি হতে হবে ভয় পেয়ে জোশুয়া মার্কিন কর্মকর্তাদের প্রস্তাবে রাজি হননি বলে ধারণা সিএনএনের।

যদিও কানাডার পররাষ্ট্র মন্ত্রী ক্রিস্টিয়া ফ্রিল্যান্ড বলেছেন, জোশুয়া তদন্তের লক্ষ্যবস্তু নয়। “আমরা পরিবারটির নিরাপত্তার কথাই বিবেচনা করছি।”

প্রচ

 
 
 
   
  Print  
 
 
 
 
Loading...
 
 
 
Loading...
 
আরও খবর

 
 
 
 
 

সম্পাদক: সুকৃতি কুমার মন্ডল

Editor: ‍Sukriti Kumar Mondal

সম্পাদকের সাথে যোগাযোগ করুন # sukritieibela@gmail.com

খবর প্রেরণ করুন # info.eibela@gmail.com

a concern of Eibela Foundation

Request Mobile Site

   বিজ্ঞাপনের জন্য যোগাযোগ:

 E-mail: sukritieibela@gmail.com

  মোবাইল: +8801711 98 15 52 

            +8801517-29 00 01

 

 

Copyright © 2017 Eibela.Com
Developed by: coder71