বৃহস্পতিবার, ১৯ অক্টোবর ২০১৭
বৃহঃস্পতিবার, ৪ঠা কার্তিক ১৪২৪
সর্বশেষ
 
 
আজ সাক্ষরিত হবে স্থলসীমান্ত চুক্তি
প্রকাশ: ১১:১৯ am ০৬-০৬-২০১৫ হালনাগাদ: ১১:১৯ am ০৬-০৬-২০১৫
 
 
 


নিজস্ব প্রতিবেদক : 
আজ সাক্ষরিত হবে ছিটমহল চুক্তি৷গত ৪১ বছর ধরে স্থলসীমান্ত নিয়ে যে সমস্যা ছিল শনিবার বিকেলে তার সমাধান হয়ে যাবে৷এই চুক্তি অনুযায়ী ভারতের সঙ্গে জুড়বে ৫১টি বাংলাদেশি ছিটমহলের ৭,১১০ একর জমি৷দাবি, ব্যবহারযোগ্য জমির নিরিখে লাভ বেশি ভারতেরই৷

১৯৪৭ সাল থেকেই বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যে স্থলসীমান্ত সমস্যা সমাধানে পৌঁছানোর উদ্যোগ শুরু হয়৷১৯৫৮ সালের নেহরু-নূন চুক্তি এবং ১৯৭৪ সালের স্থল সীমান্ত চুক্তির মাধ্যমে সীমানা জটিলতার সমাধান খোঁজার চেষ্টা করা হয়েছে৷তবে ওই দুই চুক্তিতে প্রায় ৬.১ কিলোমিটার অচিহ্নিত সীমান্ত, ছিটমহল বিনিময়ের  বিষয়ে কোনও সমাধান ছিল না। ২০১১ সালের ৬ সেপ্টেম্বর ভারতের তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী ডঃ মনমোহন সিংয়ের ঢাকা সফরকালে সাক্ষরিত ১৯৭৪ সালের স্থল সীমান্ত চুক্তির প্রটোকলে সীমান্তের সব সমস্যার সমাধান রয়েছে৷ওই প্রটোকলে সীমান্তে অচিহ্নিত অংশগুলো চিহ্নিত করার পাশাপাশি বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যে ছিটমহল সমস্যার সমাধান করে স্থায়ী সীমানা চিহ্নিত করা হয়েছে। এর আওতায় বাংলাদেশের ভেতর থাকা ভারতের ১১১টি ছিটমহল (১৭,১৬০ একর) বাংলাদেশকে দেবে ভারত। অন্যদিকে ভারতের মধ্যে থাকা বাংলাদেশের ৫১টি ছিটমহল (৭,১১০) জুড়বে ভারতের সঙ্গে৷স্থল সীমান্ত চুক্তি বাস্তবায়নের ফলে দুই দেশের ছিটমহলগুলোর বাসিন্দাদের নাগরিক সুবিধা পাওয়ার সুযোগ হবে৷১৯৭৪ সালে মুজিব-ইন্দিরা চুক্তি অনুযায়ী বাসিন্দারা পছন্দের দেশ বেছে নিতে পারবেন৷পুনর্বাসনও পাবেন তাঁরা৷ভারত-বাংলাদেশ ছিটমহল বিনিময় সমন্বয় কমিটির (বিবিইইসিসি) জনগণনা অনুযায়ী, বাংলাদেশের ভেতরে ভারতীয় ১১১টি ছিটমহলের লোকসংখ্যা ৩৭ হাজার ৩৩৪ জন৷ অন্যদিকে, ভারতের ভেতরে ৫১টি বাংলাদেশি ছিটমহলের লোকসংখ্যা ১৪ হাজার ২১৫ জন। ছিটমহল বিনিময় হলেও এর বাসিন্দাদের বসতবাড়ি ছাড়তে হবে না। তারা তাদের পছন্দ অনুযায়ী নাগরিকত্ব বেছে নিতে পারবেন। কোথায় আমার দেশ এই প্রশ্নের দিন এবার শেষ হতে চলেছে৷নাগরিকত্ব না থাকায় এতদিন নানা সমস্যায় ভুগতে হত এখানকার মানুষদের৷স্কুলে ভরতি হওয়ায় জন্য ভারতীয় নাগরিকত্ব থাকা কোনও ব্যক্তির শরণাপন্ন হতে হত তাঁদের৷ তাঁদের সন্তান হিসাবে পরিচয় দিয়ে স্কুলে ভরতি হতে হত তাদের৷এই সকল সমস্যার সমাধানসূত্র মিলবে আজ৷ঢাকায় আসার আগেই স্থলসীমান্ত চুক্তি বাস্তবায়নে সর্বসম্মতিক্রমে সংবিধান সংশোধন করেছেন নরেন্দ্র মোদী৷

ভারতের বিদেশ সচিব জানান, স্থল সীমান্ত চুক্তি বাস্তবায়নই নরেন্দ্র মোদীর বাংলাদেশ সফরের মূল লক্ষ্য। আর এটি বাস্তবায়িত হলে সীমান্তে নিরাপত্তা আরও জোরালো হবে এবং শান্তি ফিরবে বলে আশাবাদী দিল্লি৷

ছিটমহল চুক্তির পর বদলে যাবে ভারত-বাংলাদেশ মানচিত্র৷ইতিমধ্যেই শুরু হয়ে গিয়েছে মানচিত্র তৈরির কাজ৷শুরু হয়েছে ছিটমহলের প্রশাসনিক প্রক্রিয়া৷কোচবিহারে কেন্দ্র ও রাজ্য সরকারের কর্মীরা মানচিত্র তৈরির কাজ শুরু করেছে৷
এইবেলা ডট কম/এইচ আর
 
 
 
   
  Print  
 
 
 
 
Loading...
 
 
 
Loading...
 
আরও খবর

 
 
 
 
 

সম্পাদক: সুকৃতি কুমার মন্ডল

Editor: ‍Sukriti Kumar Mondal

সম্পাদকের সাথে যোগাযোগ করুন # sukritieibela@gmail.com

খবর প্রেরণ করুন # info.eibela@gmail.com

a concern of Eibela Foundation

Request Mobile Site

   বিজ্ঞাপনের জন্য যোগাযোগ:

 E-mail: sukritieibela@gmail.com

  মোবাইল: +8801711 98 15 52 

            +8801517-29 00 01

 

 

Copyright © 2017 Eibela.Com
Developed by: coder71