রবিবার, ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০১৭
রবিবার, ১৪ই ফাল্গুন ১৪২৩
সর্বশেষ
 
 
আজও মানুষকে আলোর পথ দেখায় স্বামীজির এই আদর্শগুলি
প্রকাশ: ০৬:০১ am ১২-০১-২০১৭ হালনাগাদ: ০৬:০১ am ১২-০১-২০১৭
 
 
 


ধর্ম ডেস্ক::  একবার এক ব্রিটিশ তাঁর কাছে জানতে চান, কেন তিনি ‘জেন্টলম্যান’দের মতো পোশাক পরেন না৷ হেসে জবাব দিয়েছিলেন, “তোমাদের জেন্টলম্যান তৈরি হয় দর্জিদের কাছে, আমাদের সংস্কৃতিতে জেন্টলম্যান তৈরি হয় চরিত্র দিয়ে”৷ এমনই ছিলেন স্বামীজি৷ যে বিশ্বাসের বীজ স্বামী বিবেকানন্দ এই বঙ্গে একদিন পুঁতেছিলেন৷ আজ তা মহীরূহ৷ আজও মানুষকে বাঁচতে শেখায় তাঁর এই আদর্শগুলি৷

১) নিজের উপরে বিশ্বাস না এলে ঈশ্বরের বিশ্বাস আসে না৷

২) ওঠ, জাগো, যতদিন না লক্ষ্যস্থলে পৌঁছাচ্ছো, থেমো না৷

৩) মন ও যুক্তির মধ্যে দ্বন্দ্ব হলে, নিজের মনকেই অনুসরণ কর৷

৩) জগতে যদি কিছু পাপ থাকে, তবে দুর্বলতাই সেই পাপ৷ সর্বপ্রকার দুর্বলতাকে ত্যাগ কর৷

৪) দর্শনবর্জিত ধর্ম কুসংস্কারে গিয়ে দাঁড়ায়, আবার ধর্মবর্জিত দর্শন শুধু নাস্তিকতায় পরিণত হয়৷

৫) অনেক শক্তিমানই হাল ছেড়ে দেয়৷ হার মানে বহু দ্রুতগামী৷ জীবনযুদ্ধে তাঁরাই জেতে, যাঁরা ভাবে জিতবই আমি৷

৬) সারাদিন চলার পথে যদি কোনও সমস্যার সম্মুখীন না হন, তাহলে বুঝবেন আপনি ভুল পথে চলছেন৷

৭) কখনও ভাবিও না আত্মার পক্ষে কিছু অসম্ভব৷ এরূপ বলা ভয়ানক নাস্তিকতা৷

৮) পরোপকারই জীবন, পরহিত চেষ্টার অভাবই মৃত্যু৷

৯) কেবল শারীরিক সাহায্য দ্বারা জগতের দুঃখ দূর করা যায় না৷ যতদিন না মানুষের প্রকৃতি পরিবর্তিত হচ্ছে, ততদিন এই শারীরিক অভাবগুলি সর্বদাই আসবে এবং দুঃখ অনুভূত হবেই হবে৷

১০) কেউ কাউকে শেখাতে পারে না৷ ‘শেখাচ্ছি’ মনে করেই শিক্ষক সব মাটি করে৷

১১) মানুষ মূর্খের মত মনে করে, স্বার্থপর উপায়ে সে নিজেকে সুখী করিতে পারে৷ বহুকাল চেষ্টার পর অবশেষে বুঝতে পারে-প্রকৃত সুখ স্বার্থপরতার নাশে৷

এবং

১২) জীবে প্রেম করে যেইজন সেই জন সেবিছে ঈশ্বর৷

 

 

এইবেলাডটকম/প্রচ

 
 
 
   
  Print  
 
 
 
 
 
 
 
Migration
 
আরও খবর

 
 
 

News Room: news@eibela.com, info.eibela@gmail.com, Editor: editor@eibela.com

a concern of Eibela Foundation

Request Mobile Site

Copyright © 2017 Eibela.Com
Developed by: coder71