মঙ্গলবার, ২৪ জানুয়ারি ২০১৭
মঙ্গলবার, ১১ই মাঘ ১৪২৩
সর্বশেষ
 
 
আগামী ১৫ ডিসেম্বর আরো ১০ হাজার নার্স নিয়োগ দেয়া হবে : নাসিম
প্রকাশ: ১১:৪৮ am ১০-১২-২০১৬ হালনাগাদ: ১১:৪৮ am ১০-১২-২০১৬
 
 
 


ঢাকা : স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম বলেছেন, আগামী ১৫ ডিসেম্বর আনুষ্ঠানিকভাবে আরো ১০ হাজার নার্সকে নিয়োগ প্রদান করা হবে। এসব নার্স সরকারি হাসপাতালগুলোতে যোগ দেবেন।

তিনি শুক্রবার সন্ধ্যায় রাজধানীর তোপখানা রোডস্থ বাংলাদেশ মেডিকেল এসোসিয়েশন (বিএমএ) মিলনায়তনে বাংলাদেশ স্বাস্থ্যসেবা কর্মী সংঘের জাতীয় সম্মেলন-২০১৬’র উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এ কথা বলেন।

তিনি দেশের বিত্তহীন, গরিব ও সাধারন মানুষের স্বাস্থ্য সেবায় অরো বেশী যত্নশীল ও আন্তরিকতার সাথে কাজ করার জন্য স্বাস্থ্য কর্মীদের প্রতি নির্দেশনা প্রদান করেন।

ধনী ও বিত্তবানরা অর্থকড়ির জোরে ব্যয়বহুল হাসাপাতালে চিকিৎসা সেবা নিতে পারলেও দেশের হতদরিদ্র ও গরিব মানুষেরা চিকিৎসা সেবা পেতে সরকারি হাসপাতালগুলোতে যান উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘এসব মানুষকে সঠিকভাবে স্বাস্থ্য ও চিকিৎসা সেবা প্রদান করাই আমাদের মূল লক্ষ্য’। আর চিকিৎসা-বান্ধব এই সরকারের স্বাস্থ্য-সেবা খাতের শতভাগ সফলতা অর্জনে প্রতিটি স্বাস্থ্য কর্মীকে নিজ-নিজ দায়িত্ব নিষ্ঠার সঙ্গে পালন করতে হবে বলেও স্বাস্থ্য মন্ত্রী দৃঢ়তার সঙ্গে উচ্চারণ করেন।

এরআগে এ সম্মেলনের উদ্বোধন করেন বেসামরিক বিমান পরিবহণ ও পর্যটন মন্ত্রী এবং ওয়ার্কাস পার্টির সভাপতি রাশেদ খান মেনন এমপি।

মোহাম্মদ নাসিম বলেন, জনগণের অন্যতম মৌলিক অধিকার স্বাস্থ্য ও চিকিৎসা সেবা নিশ্চিত করতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বাধীন সরকারের গৃহীত বিভিন্ন পদক্ষেপে দেশের স্বাস্থ্য খাতের অর্জিত সাফল্য উন্নত বিশ্বে প্রশংসিত হয়েছে। স্বাস্থ্যসেবাসহ এ খাতের সার্বিক উন্নতি সাধনের জন্য বাংলাদেশ এখন স্বাস্থ্যসেবায় বিশ্বব্যাপী ‘রোল-মডেল’ হিসেবে অভিহিত হচ্ছে।

স্বাস্থ্যসেবা কর্মী সংঘের সভাপতি মাহমুদা আক্তারের সভাপতিত্বে এ অনুষ্ঠানে সংগঠনের উপদেষ্টা আবুল হোসেন, সবার জন্য স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিতকল্পে স্বাস্থ্যকর্মীদের চাকরি স্থায়ীকরণ, স্বাস্থ্য কর্মীদের ছাঁটাই-নির্যাতন বন্ধসহ সংগঠন করার অধিকার প্রদানসহ স্বাস্থ্যকর্মীদের ৭ দফা দাবি উপস্থাপন করেন।

স্বাস্থ্য মন্ত্রী এসব দাবি ধৈর্য্যসহকারে শোনেন এবং স্বাস্থ্যকর্মীদের চাকরি স্থায়ীকরণ করার আশ্বাস দেন।

তবে তিনি শর্ত হিসেবে উল্লেখ করেন, উত্থাপিত দাবিগুলোর মধ্যে ন্যায়-সঙ্গত দাবি আলোচনার ভিত্তিতে পূরণের বিষয়টি বিবেচনা করা হবে কিন্তু স্বাস্থ্য কর্মীদেরকেও প্রান্তিক জনগোষ্ঠির, বিশেষ করে গরিব ও সাধারণ মানুষের স্বাস্থ্যসেবায় প্রকৃত সেবার মনোবৃত্তি নিয়ে কাজ করতে হবে।

এ সম্মেলনে বাংলাদেশ স্বাস্থ্যসেবা কর্মী সংঘের আগামী ২ বছরের জন্য নতুন কার্যকরী কমিটি ঘোষণা করা হয়।বাসস

এইবেলাডটকম/এএস

 
 
 
   
  Print  
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
Migration
 
আরও খবর

 
 
 

News Room: news@eibela.com, info.eibela@gmail.com, Editor: editor@eibela.com

a concern of Eibela Foundation

Request Mobile Site

Copyright © 2017 Eibela.Com
Developed by: coder71