বৃহস্পতিবার, ১৯ জানুয়ারি ২০১৭
বৃহঃস্পতিবার, ৬ই মাঘ ১৪২৩
সর্বশেষ
 
 
অন্নপূর্ণায় ট্র্যাকিং
প্রকাশ: ১২:৪৩ pm ২৬-০২-২০১৬ হালনাগাদ: ০৬:৫৭ pm ১৭-০৩-২০১৬
 
 
 


এইবেলা ডেস্ক:  নেপালের অন্নপূর্ণা উচ্চতায় দুনিয়ার দশম উচ্চতম পর্বতশৃঙ্গ, কিন্তু বিপদের দিক থেকে ১ নম্বর। হিমালয়ের এ পর্বতশৃঙ্গকে স্থানীয়রা ‘প্রাণ নেয়া পর্বত’ নামে ডাকেন। এ পর্বতে আরোহণ করতে পরিশ্রম, সাহস ও ভাগ্যের দরকার হয়। ৮০৯১ মিটার উচ্চতার এ পর্বত হিমালয়ে কালী গান্ধাকি নদীর মাধ্যমে সৃষ্ট গিরিসংকটের কাছে অবস্থিত। অন্নপূর্ণা মূলত একটি পর্বতস্তূপ। এর আছে পাঁচটি চূড়া। পর্বতস্তূপটি হিমালয়ের ৫৫ কিলোমিটার এলাকাজুড়ে বিস্তৃত। কালী গান্ধাকি নদী অন্নপূর্ণাকে ধৌলগিরি পর্বতস্তূপ থেকে পৃথক করেছে। অন্নপূর্ণা ওয়ান হচ্ছে পাঁচটি চূড়ার মধ্যে সর্বোচ্চ। অন্নপূর্ণার পশ্চিম ও উত্তর-পশ্চিমাংশের ঢালগুলো বরফাবৃত।

 

 


অন্নপূর্ণা অর্থ অন্নদাত্রী। অন্নপূর্ণা ওয়ানের চূড়া প্রথমবারের মতো জয় করেছিলেন দুজন ফরাসি অভিযাত্রী। ১৯৫০ খ্রিস্টাব্দে ৩ জুন মরিস হারজগ ও লুইস ল্যাকেনাল প্রথমবারের মতো অন্নপূর্ণা ওয়ানকে মানুষের পদতলে আনেন। অন্নপূর্ণায় আরোহণের সবচেয়ে বড় বিপদ হচ্ছে হিমবাহধস। এছাড়া আছে তীব্র ঠাণ্ডা ও তুষারপাত। তার পরও অনেক পর্যটক অন্নপূর্ণায় যান এবং তার কারণ হচ্ছে, এর অসাধারণ প্রাকৃতিক সৌন্দর্য। অন্নপূর্ণা ঘিরে ৩০০ কিলোমিটার পথ আছে, যা পর্যটকদের জন্য বেশ আকর্ষণীয়। এ পথে চলতে চলতে অন্নপূর্ণা পার্বত্যাঞ্চলের সৌন্দর্য উপভোগ করা যায়। সার্কিট নামেই পরিচিত এ পথটি

অন্নপূর্ণা সার্কিটে ট্র্যাকিং করতে ৮ থেকে ২৫ দিন সময় লাগে। পুরো পথটিই পর্বত, বরফ আর গাছপালায় আচ্ছাদিত। দিগন্তে যত দূর চোখ যায়, শুধু পর্বতের বরফঢাকা চূড়া। এ সার্কিটে বর্তমানে উন্নত রাস্তা তৈরি হওয়ায় তা সাইকেল চালিয়ে পর্বত ঘুরতে চাওয়া পর্যটকদের জন্য দারুণ এক মজার ব্যাপার; বিশেষত মাউন্টেন বাইকিংয়ের জন্য কালী গান্ধাকি উপত্যকাকে দুনিয়ার অন্যতম সেরা হিসেবে গণ্য করা হয়। অন্নপূর্ণায় যাত্রা শুরু মূলত পোখরা থেকে। পোখরা নেপালের অন্যতম বড় শহর। অন্নপূর্ণা সার্কিটে সাইকেল বা অন্য মাধ্যমে ঘোরার জন্য বিভিন্ন প্যাকেজের ব্যবস্থা আছে।

বহু অ্যাডভেঞ্চারপ্রিয় পর্যটকের কাছে অন্নপূর্ণা সার্কিটে ট্র্যাকিং তাদের জীবনের অন্যতম সেরা অভিজ্ঞতা হয়ে আছে। অন্নপূর্ণায় একটু তরুণ বয়সে যাওয়াটাই শ্রেয়, নয়তো একটু বেশি বয়সে অনেক সৌন্দর্য উপভোগের শারীরিক সামর্থ্য না-ও থাকতে পারে। অন্নপূর্ণায় চলতে গিয়ে মনে হবে— সেখানে শুধু আপনি আর প্রকৃতিই আছে, আর কোনো কিছুর অস্তিত্ব নেই।

অন্নপূর্ণায় ট্র্যাকিংয়ে গাইডের সঙ্গে দরকারি মালপত্র বহনের জন্য প্রয়োজনমতো বাহক সঙ্গে নিতে হয়। ৮-১০ দিনের এ সফরে গাইডদের কাছে অনেকে বেশ খানিকটা নেপালি ভাষাও শিখে ফেলেন। পথে বরফ থেকে বন সবকিছুই চোখে পড়ে। দেখা হয় বৈচিত্র্যপূর্ণ সংস্কৃতির অনেক মানুষের সঙ্গে। অন্নপূর্ণা ট্র্যাকিংয়ে বৃষ্টির দিনে যাওয়াটা বেশ বিপজ্জনকই বটে! এপ্রিল-মে আর অক্টোবর-নভেম্বর হচ্ছে ট্র্যাকিংয়ের সবচেয়ে উপযুক্ত সময়।

সূত্র : লোনলি প্লানেট ও এক্সট্রিম স্পোর্টস


এইবেলা ডটকম/এসসি 

 

 

 
 
 
   
  Print  
 
 
 
 
 
 
 
Migration
 
আরও খবর

 
 
 

News Room: news@eibela.com, info.eibela@gmail.com, Editor: editor@eibela.com

a concern of Eibela Foundation

Request Mobile Site

Copyright © 2017 Eibela.Com
Developed by: coder71